মেইন ম্যেনু

এবার ঠোঁট দেখেই চিনতে পারবেন আপনার প্রিয় মানুষটিকে

মনে করে এই প্রথম কথা হলো কারো সঙ্গে। তাহলে তার মুখের কোন জিনিসটা আপনার চোখে সবার আগে বেশি পড়বে? এমন প্রশ্নের উত্তরে অনেকেই বলেছেন, ঠোঁট। তাহলে আপনি কি এই কথার সাথে এমনত? কোনো পাটিতে বা রেস্তরাঁয় সুন্দরীরা যখন আলতো ঠোঁটে গ্লাসে চুমুক দেন, তখন যে কত পুরুষের বুকের ভেতর ধুকধুক শুরু করে, তার কোনো হিসেব নেই। অনেকেই এমন দৃশ্য দেখার পর আবার কল্পনা করতেও চান না।

জানা যায়, মৌসুমী থেকে শাবনূর, পূর্ণিমা থেকে বিদ্যা সিনহা মীম সবারই নাকি আবেদনের রহস্য নাকি লুকিয়ে রয়েছে ওই ঠোঁটেই।

ঠোঁট সাজাতে বাজারে পাওয়া যায় হাজার রকমের প্রসাধনী কম্পানির হরেক রকমের লিপস্টিক থেকে লিপগ্লস। কিন্তু, জানেন কি? ঠোঁট দিয়ে মানুষ যেমন কথা বলে, তেমনই ঠোঁটও নাকি মানুষের মনের অনেক কথা প্রকাশ করে! যেমন : পাতলা ঠোঁট- এরা আকর্ষণীয়, স্বাধীন ও আবেদন পূর্ণ। এদের পছন্দ রোমাঞ্চ। এরা বেছে নেন রোমাঞ্চকর জীবন। রোজকার জীবনে চ্যালেঞ্জ নিতে এরা পিছপা হন না। এরা কেয়ারিং পার্টনার পছন্দ করেন। তবে এরা খুব একটা গোছানো প্রকৃতির নন।

ভরাট ঠোঁট- প্রচণ্ড আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্ব। এরা নিজেদের ব্যাপারে অত্যন্ত সজাগ। দৃঢ়চেতা। নিজের জীবন এরা নিজেরা বেছে নেন। তবে এরা একটু স্নব হয়ে থাকেন।

ছোট কিন্তু মোটা ঠোঁট- প্রকৃতি সম্বন্ধে এদের অসীম উত্সাহ। আকর্ষণীয় বটে। যেখানেই যান, মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকেন।

ভুরুর মত ঠোঁট- স্বাধীন মানসিকতার লোক। বর্তমানে বাঁচেন। ভবিষ্যত নিয়ে খুব বেশি ভাবেন না। খুব সহজে সমালোচনা নিতে পারেন।

মোটা ঠোঁট- বেশ রহস্য রহস্য ব্যাপার থাকে এদের। ব্যক্তিগত ব্যাপার এরা সন্তর্পণে লুকিয়ে রাখেন বাইরের দুনিয়া থেকে। এদেরকে বোঝা দুষ্কর।-জিনিউজ