মেইন ম্যেনু

এবার না.গঞ্জে ছাত্রীর কান ছিঁড়লো শিক্ষক

ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে নারায়ণগঞ্জের কলাগাছিয়া ইউনিয়নের কল্যান্দির পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে কান ধরে ওঠবস করানোর ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার ছাত্রীর কান ছিঁড়ে নিল এক শিক্ষক।

বেতের আঘাতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর কান ছিঁড়ে দিল সেই শিক্ষক। এতে এলাকাবাসীর রোষানল থেকে বাঁচতে আত্মগোপনে গেছেন অভিযুক্ত শিক্ষক।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বন্দর উপজেলার মিরকুন্ডি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ওই ঘটনার পর পলাতক রয়েছেন সেই শিক্ষক। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী স্কুলে জড়ো হলেও খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

জানা গেছে, দুপুরে পড়া না পারার কারণে স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী মারুফা আক্তারকে (১১) এলোপাতাড়ি বেত্রাঘাত করেন সহকারী শিক্ষক আলমগীর হোসেন।

বেতের আঘাতে ওই ছাত্রীর কান কেটে রক্ত পড়তে থাকে। ছাত্রীর চিৎকারে অন্য শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীরা এসে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এদিকে শিক্ষকের বেতের আঘাতে ছাত্রীর কান কেটে গেছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে জড়ো হতে থাকে উত্তেজিত এলাকাবাসী। তবে এর আগেই পালিয়ে যান সেই শিক্ষক।

অভিযুক্ত শিক্ষক আলমগীর সাবদী এলাকার মুসলেউদ্দিনের পুত্র বলে জানা গেছে।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম জানান, মিরকুন্ডি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকের বেতের আঘাতে এক ছাত্রীর কান কেটে যায়। এমন খবরে উত্তেজিত এলাকাবাসী স্কুলে অবস্থান নেয়। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এদিকে গত ১৩ মে এক শিক্ষার্থীকে মারধর এবং ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগ এনে নারায়ণগঞ্জের কলাগাছিয়া ইউনিয়নের কল্যান্দির পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে কান ধরে ওঠবস করানোর ঘটনায় ফেঁসে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ (শহর ও বন্দর) আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান।