মেইন ম্যেনু

পানামা পেপার্স ফাঁসের পাঁচ মাস পর

এবার বাহামার ১৩ লাখ ফাইল ফাঁস

পানামা পেপার্স ফাঁসের পাঁচ মাস পর এবার ফাঁস হলো বাহামার ১৩ লাখ ফাইল। যাতে কর ফাঁকি দিয়ে সম্পদের পাহাড় গড়ে তোলা বিশ্ব নেতা, রাজনীতিক, প্রভাবশালী ব্যক্তি ও বিভিন্ন নামী প্রতিষ্ঠানে পরিচয় ফাঁস হয়ে গেছে।

বাহামায় ১৯৯০ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত নিবন্ধিত এক লাখ ৭৫ হাজারেরও বেশি কোম্পানি, ট্রাস্ট ও ফাউন্ডেশন থেকে এই ১৩ লাখ ফাইল ফাঁস হয়েছে।

একটি সূত্রের কাছ থেকে ফাইলগুলো প্রথমে পায় জার্মানির সংবাদপত্র জুইডয়েচে সাইটুং। পরে ওয়াশিংটন ভিত্তিক আন্তর্জাতিক অনুসন্ধানী সাংবাদিক সংস্থা-আইসিআইজের সঙ্গে মিলে বুধবার এসব ফাইল ফাঁসের তথ্য প্রকাশ করে পত্রিকাটি।

ফাইলগুলো থেকে দেখা গেছে, বাহামার কর ফাঁকির অনন্য স্বর্গরাজ্য হওয়ার সুযোগ ব্যবহার করে বিশ্বের বিভিন্ন রাজনীতিক, উদ্যোক্তা, অর্থ যোগানদাতা এবং প্রতারণায় যুক্ত ব্যক্তিরা কিভাবে সম্পদ পাচার করেছেন।

ফাইলগুলোতে সাবেক ইউরোপিয়ান কমিশনার নেলি ক্রাস, যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আম্বার রাড ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের বাবা ইয়ান ক্যামেরন, সাবেক মঙ্গোলিয়ান প্রধানমন্ত্রী সুখবাতার ব্যাটবল্ড।

এছাড়াও অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছেন জার্মানির প্রপার্টি ডেভেলপার সেম কিনে, টার্কস ও কেইকোস দ্বীপপুঞ্জের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাইকেল মিসিক।

কানাডার সবচেয়ে বড় তিন ব্যাংক আরবিসি, সিআইবিসি এবং স্কশিয়াব্যাংকও আছে তালিকাতে।

সম্পদ পাচারে জড়িতদের মধ্যে রয়েছেন, কলম্বিয়ার খনিজ ও জ্বালানি মন্ত্রী কার্লোস ক্যাবালেরো আরগায়েজ, চিলির সাবেক স্বৈরশাসক অগাস্টো পিনোশে, নাইজেরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট সানি আবাশার ছেলে আব্বা আবাশা।

গ্রিস, ইউক্রেন, কুয়েত, ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর রাজনীতিক এবং সাদ্দাম আমলে ইরাকে জাতিসংঘের জ্বালানি তেলের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচির সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তাদেরও নামও রয়েছে সম্পদ পাচারের তালিকায়।

এছাড়া কাতারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী শেখ হামাদ বিন জসিম বিন জাবের আল থানি, আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট মরিকো ম্যাকরি, তার বাবা ফ্যান্সিসকো এবং ভাই ম্যারিয়ানোসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাজনীতিক, প্রভাবশালী ব্যক্তির নামও আছে ফাঁস হওয়া নথিতে।