মেইন ম্যেনু

এবার মোহাম্মদপুরে শিশুর পায়ুপথে বাতাস

এবার রাজধানীর মোহাম্মদপুরে এক শিশু শ্রমিকের পায়ুপথে বাতাস দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। আরন নামে ১১ বছর বয়সী ওই শিশুটির দুই সহকর্মী এই কাজ করেছে বলে জানা গেছে।। বুধবার বিকাল পাঁচটার দিকে কাটাসুরের মেঘলা অটোমোবাইল গ্যারেজে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর অসুস্থ আরনকে ঢাকা মেডিকেলের জরুরি বিভাগে নেয়া হয়েছে।

গ্যারেজের মালিক মো. মিন্টু বলেন, আরনের গ্রামের বাড়ি ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ায়। সে আমার গ্যারেজে কাজ করত। বিকালে গ্যারেজের দুই শ্রমিক রাব্বি ও শরিফুল কমপ্রেসার মেশিন দিয়ে তার পায়ুপথে বাতাস দেয়। পরে তার অবস্থা খারাপ হতে থাকে। বিষয়টি জানতে পেরে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে আমি ও আমার মা তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপপরিদর্শক বাচ্চু মিয়া। চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। কিছুক্ষণের মধ্যেই শিশুটির অস্ত্রোপচার শুরু হবে।

গত ২৪ আগস্ট রাজধানীর ভাটারায় মামুন নামে ফার্নিচার দোকানের এক কর্মচারীর পায়ুপথ দিয়ে পেটে বাতাস ঢোকানোর অভিযোগ পাওয়া যায়। এর আগে জুলাই মাসে আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুরে কারখানার মধ্যে এক পোশাক শ্রমিককে পায়ুপথে বাতাস ঢুকিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়।

এছাড়া গত বছরের ৪ আগস্ট খুলনার টুটপাড়া এলাকায় একটি মোটর গ্যারেজে পায়ুপথে পাইপের মাধ্যমে বাতাস ঢুকিয়ে হত্যা করা হয় রাকিব হাওলাদার নামে এক কিশোরকে। ওই ঘটনায় দুজনের ফাঁসির রায় হয়েছে।