মেইন ম্যেনু

এবার যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে তিন দেশের সতর্কতা

নিরাপত্তার অজুহাতে প্রায়ই নাগরিকদের বিভিন্ন দেশে ভ্রমনে সতর্ক করে থাকে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এবারে একই আশংকায় যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে নিজ দেশের নাগরিকদের সতর্ক থাকার নির্দেশনা দিয়েছে তিনদেশ।

সম্প্রতি পুলিশের গুলিতে কয়েক জন কৃষ্ণাঙ্গ নিহতের জেরে সৃষ্ট বিক্ষোভ-সহিংসতার কারণে দেশটিতে ভ্রমণের বিষয়ে নিজ নাগরিকদের সতর্ক করেছে বাহরাইন, বাহামা ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। খবর রয়টার্সের।

যুক্তরাষ্ট্রের লুইজিয়ানা ও মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যে পুলিশের গুলিতে দুই কৃষ্ণাঙ্গ তরুণ নিহত হওয়ার পর থেকে দেশজুড়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভ চলছে। এতে কোথাও কোথাও সহিংসতার ঘটনাও ঘটছে।

টেক্সাসের ডালাসে এরকম এক প্রতিবাদ বিক্ষোভ চলাকালে গত বৃহস্পতিবার এক কৃষ্ণাঙ্গ বন্দুকধারীর গুলিতে পাঁচ পুলিশ কর্মকর্তা নিহত ও অপর সাতজন আহত হয়েছেন।

এসব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মধ্যপ্রাচ্যের ছোট দ্বীপরাষ্ট্র বাহরাইন যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণরত নিজ নাগরিকদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে।

শনিবার এক টুইটার বার্তায় বাহরাইন নিজ নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রের যেসব স্থানে প্রতিবাদ চলছে এবং যেখানে লোক সমাগম ঘটছে সেসব এলাকা এড়িয়ে চলার এবং এবিষয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে।

ক্যারিবীয় দেশ বাহামা শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের যে শহরগুলোতে তরুণ কৃষ্ণাঙ্গদের লক্ষ্য করে পুলিশের গুলির্বষণ করায় বিক্ষোভ-প্রতিবাদ শুরু হয়েছে সেসব শহর ভ্রমণের বিষয়ে নিজ নাগরিকদের সতর্ক করেছে। বাহামার অধিকাংশ নাগরিক আফ্রিকান বংশোদ্ভূত।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যুক্তরাষ্ট্রের সহিংসতা কবলিত শহরগুলোতে নিজ দেশের তরুণদের পুলিশের মুখোমুখি হলে অত্যন্ত সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে। পাশাপাশি পুলিশের সঙ্গে বিবাদে না জড়িয়ে তাদের সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়েছে।

অপরদিকে সংযুক্ত আরব আমিরাত যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা জানানোর ভাষা প্রায় অনুসরণ করে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা নিজ দেশের শিক্ষার্থী ও অন্যান্য নাগরিকদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে।

ওয়াশিংটনে আরব আমিরাতের দূতাবাস থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে নিজ দেশের নাগরিকদের চারপাশ সম্পর্কে সতর্ক থাকতে ও সম্ভব হলে ভিড় এড়িয়ে চলতে বলা হয়েছে। এছাড়া বড় ধরনের উৎসব ও অনুষ্ঠানের সময় নির্দিষ্ট সতর্কতা বজায় রাখার পরামর্শও দেয়া হয়েছে।

চলতি মাসেই বাংলাদেশ, ভেনেজুয়েলা, ইরাক ও মালিতে ভ্রমণের বিষয়ে নিজ নাগরিকদের সতর্ক করেছে যুক্তরাষ্ট্র।