মেইন ম্যেনু

এমন দশটা সুপারহিট সিনেমা যা বাড়ির সবার সঙ্গে বসে দেখা যায় না…

সিনেমা অনেক ধরনের হয়। কখনও তা মন জিতে নেওয়ার, কখনও নিখাদ বিনোদনের, কখনও আবার ভাবিয়ে তোলার। আসুন এমন দশটা সিনেমার কথা লি যেগুলি দারুণ হিট, প্রশংসিত কিন্তু পরিবারের সবার সঙ্গে দেখার মত নয়—

১০) গন গার্ল (২০১৪)- সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার বিষয়ে সেরা ছবিগুলির মধ্যে একটি হল বেন আফ্লেক অভিনীত এই সিনেমাটি। একটি মেয়ের হারিয়ে যাওয়া, স্বামী-স্ত্রী সম্পর্কের চাপানউতোর নিয়ে তৈরি এই সিনেমার প্রতি মুহূর্তে টানাটান করা সব দৃশ্য, সংলাপ। যে কোনও মুডে দেখার পক্ষে সেরা। কিন্তু সিনেমায় এমন বেশ কিছু দৃশ্য আছে যা বাড়ির সবার সামনে বসে দেখলে অস্বস্তি হবেই। পরিচালক ডেভিড ফিঞ্চার নিজেই বলেছেন, এ ছবির বিষয়বস্তু সবাইকে আকৃষ্ট করবে, কিন্তু এটা সবার সঙ্গে বসে দেখার সিনেমা নয়।

৯) জিসম (২০০৩)- বিপাশা বসু, জন আব্রাহামের এই সিনেমা বক্স অফিসে সাড়া ফেলে দেয়। এক বিবাহিত মহিলার প্রেমে মত্ত এক যুবকের প্রতারিত হওয়ার গল্প ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এই সিনেমায়। কিন্তু সিনেমায় এত খোলাখুলি সব দৃশ্য আর সংলাপ রয়েছে যা বাড়ির সবার সঙ্গে দেখার পক্ষে কিছুটা বিপজ্জনক তো বটেই।

৮) আনফেথফুল (২০০২)–হলিউডের অন্যতম সেরা জনপ্রিয় সিনেমা। গল্পের মোচড় অনেক প্রশ্নের সামনে দাঁড় করায়। প্রেম, বিশ্বাসঘাতকতা, শরীরী টানের বুনেটে তৈরি হওয়া এই সিনেমার গল্পটাই এমন যে বাড়ির সবার সামনে দেখতে বসলে উঠে যাওয়া ছাড়া বিশেষ কিছু করার থাকে না।

৭) ফিফটি শেডস অফ গ্রে (২০১৫)–ব্রিটিশ লেখিকা ই. এল. জেমসের সর্বাধিক বিক্রি হওয়া উপন্যাস ‘ফিফটি শেডস অব গ্রে’ অবলম্বনে তৈরি হয়েছে ছবিটি। চলতি বছরের সবচেয়ে বড় হিট। ১০০ মিনিটের এই সিনেমার পরতে পরতে আছে যৌনতা। তবে সিনেমাটা কিন্তু শুধু যৌনতার ওপর দাঁড়িয়ে নেই। সমালোচকরা এই সিনেমাকে নম্বর দিচ্ছেন যৌনতার বাইরে সিনেমার বিষয়বস্তুর জন্য। তাই যদি সিনেমাটা দেখতেই চান একটু ব্যক্তিগত পরিসরে দেখুন, না হলে…

৬) আমেরিকান বিউটি (১৯৯৯)-মেয়ের বন্ধুর শরীরের প্রেমে পড়ে যাওয়া এক মধ্যবয়স্ক পুরুষের কাহিনি। সমালোচক, দর্শকদের কাছে বহু প্রশংসা আদায় করা এই সিনেমা জিতেছে অস্কারে সেরা সিনেমা, সেরা পরিচালক, সেরা অভিনেতার পুরস্কার। অবশ্য ভুলেও পরিবারের সবার সঙ্গে বসে দেখার কথা ভাবা উচিত নয়, সে আপনি পরিবারের সঙ্গে যতই খোলামেলা হোন না কেন।

৫) দিল্লি বেলি (২০১১) —দারুণ মজার ছবি। না দেখলে মিস করার ব্যাপার থাকে। তবে কী এমন কিছু সংলাপ আর দৃশ্য আছে সবার সঙ্গে দেখাটা একটু চাপের।

৪) ম্যাজিক মাইক (২০১২)- একটু অন্য কারণে ছবিটি পরিবারের সবার সামনে বসে দেখা যায় না। ছবিটিতে অসমবয়সী নানা প্রেমের কথা রয়েছে যা কখন আপনার মাকে অস্বস্তিতে ফেলবে, আবার কখনও তা ফেলবে আপনাকে।

৩) সত্যম শিবম সুন্দরম (১৯৭০)-বলিউডের চিরকালীন সেরা সিনেমার তালিকায় একেবারে প্রথমের দিকে থাকবে রাজ কাপুরের এই সিনেমা। অভিনয়, পরিচালনা, গল্প, গান সব কিছুতেই যুগের থেকে অনেকটা এগিয়ে সত্যম শিবম সুন্দরম। শশী কাপুর আর জিনত আমনের প্রেম সবাইকে মুগ্ধ করার মত। একটা সময় লোকে ভাবতে পারত না পরিবারের সবার সঙ্গে এই সিনেমা দেখার। তবে বেসরকারি টিভি চ্যানেলে অনেক কাটের পর বহুবার দেখানোর পর মানুষ এখন পরিবারের সঙ্গে দেখছে ঠিকই, কিন্তু একটু আমতা আমতা করে।

২) দ্য ব্যানডিট কুইন (১৯৯৪)–পরিচালক শেখর কাপুর পরিচালিত এই ছবির গল্পে ফুলন দেবীর জীবন তুলে ধরা হয়েছিল৷ ছবিতে সেক্সুয়াল কনটেন্ট, নুড্যিটি এবং কিছু অশ্রাব্য ভাষার ব্যবহারের জন্য দ্য ব্যানডিট কুইনের মতো সিনেমাকে সেন্সর বোর্ড নিষিদ্ধ করে৷ কিন্তু ছবিটিতে বিতর্কের মাত্রা যোগ করেন ফুলন দেবী স্বয়ং৷ ফুলন দেবীর অভিযোগ ছিল, তাঁর জীবনের বেশ কিছু গুরুত্বপুর্ণ তথ্য বিকৃত করা হয়েছে৷ ছবিটা যতই ভাল হোক পরিবারের সবার সামনে দেখাটা একটু অস্বস্তির বৈকি।

১) বেসিক ইন্সটিংক্ট (১৯৯২)-ইরটিক থ্রিলার ‘বেসিক ইন্সটিংক্ট’- এ শ্যারন স্টোনের আবেদনময়ী অবতারের কথা চলচ্চিত্রপ্রেমীরা আরও অনেক দিন মনে রাখবেন। ব্যবসায়ীক নিরিখে একেবারে আকাশছোঁয়া সাফল্য বলা চলে। শ্যারোন স্টোনের পাশাপাশি ছবির গল্পের মোচড়টাও বেশ আকর্ষণীয়। তবে সব জিনিস তো সব জায়গায় চলে না। তাই পরিবারের সবার সঙ্গে দেখা থেকে বিরত থাকেন সবাই…