মেইন ম্যেনু

‘জয়ের সঙ্গে একমত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী’

এমপি লিটনকে সময় দেয়া হয়েছে

কিশোরের দুই পায়ে গুলি বর্ষণকারী সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনকে আত্মসমর্পণ করতে সময় দেয়া হয়েছে। আত্মসমর্পণ না করলে তাকে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার সকাল পৌনে ৬টার দিকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দহবন্ধ ইউনিয়নের গোপালচরণ (বৌদ্ধনাথ-ব্র্যাক মোড়) এলাকায় এমপি লিটনের ছোড়া গুলিতে সৌরভ নামে এক কিশোর দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়।

এর আগে এতোদিনেও গ্রেপ্তার না হওয়া প্রসঙ্গে পুলিশ বলেছে, ঘটনার পর থেকে এমপি লিটন পলাতক। তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলেই গ্রেপ্তার সম্ভব হয়নি।

এমপি লিটন

বিদেশি হত্যায় জামায়াত-বিএনপি, জয়ের সঙ্গে একমত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

‘দুই বিদেশি হত্যায় বিএনপি-জামায়াত জড়িত থাকার প্রমাণ রয়েছে’ প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয়ের এমন দাবির সঙ্গে সহমত পোষণ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। সচিবালয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি তার এ অবস্থানের কথা জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তার (জয়) বক্তব্যে একমত- উনি নিশ্চয়ই প্রমাণ পেয়ে একথা বলেছেন।’ জয়ের বক্তব্যকে গুরুত্বের সঙ্গে নেয়া হয়েছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘সজিদ ওয়াজেদ জয়ের বক্তব্যে সত্যতা আছে। না হলে দুই বিদেশি হত্যাকাণ্ডে এ ধরনের বর্বরতা কেন? কারা এর সুবিধাভোগী? আগে অগ্নিসন্ত্রাস করে যারা ব্যর্থ হয়েছেন হয়তো তাদের নতুন কোনো কৌশল হতে পারে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘সব সন্দেহ সামনে রেখে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করি, শীঘ্রই দুই বিদেশি হত্যার রহস্য উদঘাটন করতে পারবো।’

দুই বিদেশি হত্যায় আইএসের সম্পৃক্ততা নেই- এই দাবির পুনরাবৃত্তি করে আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, ‘অতীতের ইতিহাস ও ঘটনাপ্রবাহে এমন হত্যাকাণ্ড কারা ঘটাতে পারে তা আমরা খতিয়ে দেখছি।’ তবে সুনির্দিষ্ট তথ্য জানাতে কয়েকদিন সময় লাগবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার নিজস্ব ফেসবুক পাতায় জয় লেখেন, দুই বিদেশি হত্যায় বিএনপি-জামায়াতের হাত আছে। লন্ডন বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে তিনি এ ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছেন বলে দাবি করেন।

এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল তার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের সভায় অংশ নেন। তার সভাপতিত্বে সভায় অংশ নেন বোর্ডসদস্য শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, ডাক, তার ও টেলিযোযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে বাজারে প্রচলিত এনার্জি ড্রিংক্স এ মাদক দ্রব্য ও ক্ষতিকারক দ্রব্য উপস্থিতির বিষয়টি পরীক্ষা করে দেখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। প্রমাণ পাওয়া গেলে এসব ড্রিংক্সের উৎপাদন বন্ধ করাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া রাজধানীর গুলশান, বনানী, মহাখালী, ধানমণ্ডি এলাকার সিসাবারগুলোও বন্ধের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।