মেইন ম্যেনু

এসএসসি পরীক্ষা দেয়া শিক্ষার্থীদের জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস

কেউ যদি তোমাকে বলে “আর দুইটা বছর কষ্ট করে ভালো কোথাও ভর্তি হও, তারপর আর কষ্ট নাই” তাইলে ভুলেও তার কথার ফাঁদে পা দিওনা। মনে রাখবা, তোমার জীবনের সবচেয়ে শান্তির সময় অলরেডি শেষ হয়ে গেছে। বাকি আছে শুধু কলেজ ভর্তির আগের সময়টুকু। একটা একটা করে দিন যাবে, জীবন একটু একটু করে কমপ্লেক্স হবে, পড়াশোনার প্রেসার বাড়বে। বিটিভিতে ছোটবেলায় নাটক দেখাইতো আজিজুল হাকিম একটা খাতা নিয়ে ভার্সিটিতে যাইতেসে, শমী কায়সারকে সাথে নিয়ে ঘুরতেসে। মনে রাখবা, বাস্তব জীবনের ভার্সিটি মোটেও এমন না।

তাই জীবন অনেক বেশি জটিল, অনেক বেশি পড়াশোনার চাপ আসার আগেই ভালো কিছু মুভি দেখো, ভালো কিছু গান শোনো, ভালো কিছু মানুষের সাথে মেশো, কাছের কিছু মানুষের কাছ থেকে প্রতারিত হও, জীবনটা চিনতে শেখো। সবচেয়ে বড় কথা হলো প্রচুর (ভালো) বই পড়। ১০ মিটার গভীরতায় পানির চাপ কত – এটা আজ থেকে ৫ বছর পর তোমার কোন কাজে নাও লাগতে পারে। কিন্তু পাওলো কোহেলোর বই এর একটা লাইন তোমার মনে দাগ কাটতে পারে ৫০ বছরের জন্য।

ভুলেও কাওকে অবহেলা করো না। জিপিএ ৪.০০ পাওয়া যে ছেলেকে আজ কেউ পাত্তা দিতেসো না, ভবিষ্যতে সে নিজের যোগ্যতায় কতটা উন্নতি করতে পারে – তা কিন্তু কেউ জানে না। অবহেলা করা এবং খারাপ ব্যবহার করা খুব মারাত্মক জিনিস। তুমি নিশ্চিত থাকো যে পরিমান অবহেলা এবং খারাপ ব্যবহার তুমি অন্যের সাথে করবে, ঠিক সে পরিমান অবহেলা এবং খারাপ ব্যবহার তুমি অন্যকারো কাছ থেকে ফেরত পাবে।

নিজের মত করে নিজেকে গুছিয়ে নাও। নিজের আগ্রহকে প্রাধান্য দিয়ে জীবন নিয়ে ভাবতে শেখো। যে কাজ করতে দ্বিধা হয়, সবার আড়ালে লুকিয়ে করতে হয় – জেনে রেখো সে কাজ খারাপ। নিজের বিবেকের সাথে লড়াই করে হলেও “না” বলতে শেখো। এটা অনেক বড় একটা গুণ। শুধু এই একটা গুণ তোমাকে জীবনের অনেক অনেক খারাপ সঙ্গ বা জিনিস থেকে বাঁচিয়ে দেবে।

কখনো হতাশ হবা না। কক্ষনো না। খারাপ সময় আসবেই। সেটাকে নিজে নিজে পার করতে শেখো। এভাবে জীবযুদ্ধে কৌশলী হও। নিজের স্বপ্ন গড়ার পেছনে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কাজ শুরু করো। খুব বেশি দেরি করো না যাতে অন্যকেউ তার স্বপ্ন গড়ার জন্য তোমাকে ভাড়া করে নেয়।

নিজের মত করে বাঁচতে শেখো। বাঁচে তো সবাই, কিন্তু নিজের মত করে বাঁচে কয়জন?

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম Ratul Anick Paul এর ফেইসবুক থেকে নেওয়া