মেইন ম্যেনু

এসব কি চুরির জিনিস!

টাকা চুরি, মোবাইল চুরি এমনকি টিভি সেট চুরির কথা আমরা প্রায়শই শুনে থাকি। তাই বলে নারীর অন্তর্বাস চুরি! এমন চুরির দায়েও গ্রেফতারের ঘটনাও ঘটেছে।

নারীদের অন্তর্বাস চুরির অভিনব ঘটনাটি ঘটেছে জাপানে। আর আটক হওয়া ওই চোরের নাম তোমোহিরো হনমা। দেশটির রাজধানী টোকিওর নিজ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে তাকে আটক করে পুলিশ। চুরির মালমাল হিসেবে তার বাসা থেকে জব্দ করা হয়েছে নারীদের ২০০টি অন্তর্বাস!

৩১ বছর বয়সী তোমোহিরো টোকিওর কানাগাওয়ার কাওয়াসাকির তাকাৎসু ওয়ার্ড ভবনে বসবাস করছিলেন। আর নারীর অন্তর্বাস চুরির পেছনের কারণও আরো বেশ অদ্ভূত রকমের। যৌন পরিতৃপ্তির জন্যই নাকি সে নিয়মিত এ কাজ করতো। একই ভবনের বিভিন্ন অ্যাপার্টমেন্টে বসবাসরত নারীদেরই অন্তর্বাস চুরি করতো সে। অ্যাপার্টমেন্টের নারী বাসিন্দারা বারান্দা বা ব্যালকনিতে কাপড় শুকাতে দিলেই তোমোহিরো সুযোগ বুঝে সেগুলো চুরি করতেন।

কথায় আছে, চোরের দশ দিন আর মালিকের একদিন। তোমোহিরোর ক্ষেত্রেও এমনটি হয়েছে। ওই ভবনের এক নারীর ১২টি ব্রা ও প্যান্টি চুরি যায়। একদিন বিষয়টি দেখে ফেলেন তিনি। পরে তোমোহিরোর অ্যাপার্টমেন্টে তল্লাশি চালিয়ে তারসহ ২০০টি অন্তর্বাস উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারের পর চুরির কারণ প্রসঙ্গে তোমোহিরো জানান, ‘আমি নারীদের অন্তর্বাস পছন্দ করি। যৌন পরিতৃপ্তির জন্য আমি এ কাজ করে থাকি।’