মেইন ম্যেনু

এ বিজয় ১৬ কোটি মানুষের বিজয়: ইমরান

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর হওয়ার খবরে উল্লাস প্রকাশ করেছে গণজাগরণ মঞ্চ।

রাত পৌনে ১টার দিকে শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে এ খবর পৌঁছালে সেখানে গণজাগরণ মঞ্চের নেতৃত্বে আগে থেকেই অবস্থান নেয়া শতশত মানুষ ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে উল্লাসে ফেটে পড়ে। তারা আনন্দে একে অপরকে জড়িয়ে ধরেন।

এ সময় প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার সাংবাদিকদের বলেন, ‘সাকা-মুজাহিদের ফাঁসির মাধ্যমে যে বিজয় হয়েছে সে বিজয় একটি বিশাল বিজয়’। এজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার সরকারের আন্তরিক উদ্যোগের কথা স্মরণ করেন এবং ধন্যবাদ জানান।

ইমরান বলেন, ‘আনন্দ প্রকাশের এই মুহূর্তে আমরা জাতির জনক, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ঘাতক দালাল নির্মূল আন্দোলনের প্রদর্শক শহীদ জননী জাহানারা ঈমাম এবং সকল শহীদদের স্মরণ করছি।’

তিনি বলেন, ‘শুধু শহীদ পরিবারই নয় সাকা-মুজাহিদের মামলার বাদি এদেশের ১৬ কোটি মানুষ। আজকের বিজয় ১৬ কোটি মানুষের বিজয়।’

যুদ্ধপরাধ বিরোধী নতুন আন্দোলনের শহীদ গণজাগরণ মঞ্চের ২২ কর্মীর কথা স্মরণ করে ডা. ইমরান বলেন, ‘স্বাধীনতার পর সাড়ে ৩ বছরের মধ্যে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশকে পেছনে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। এ দুটি রায় কার্যকরের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে পুনরজ্জীবীত করার মাইল ফলক স্থাপিত হলো।’

তিনি বলেন, ‘শুধু তাই নয়, মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত হওয়ার পরও সাকা-মুজাহিদের মতো লোকেরা বাংলাদেশে পাকিস্তানের যে বিষবৃক্ষ রোপনের চেষ্টা করেছিল তা উৎপাটন সম্ভব হবে রায় কার্যকরের মধ্য দিয়ে।’

সাকা-মুজাহিদের প্রাণভিক্ষা প্রসঙ্গে ইমরান বলেন, ‘আজ সাকা-মুজাহিদ তাদের অপরাধ স্বীকার করে রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চেয়ে প্রাণভিক্ষা চেয়েছে। এ ঘটনার মধ্য দিয়ে জামায়াত রাজনীতি করার নৈতিক অধিকার হারিয়েছে। একইসঙ্গে সাকা-মুজাহিদ প্রমাণ করেছে তাদের কোনো আদর্শ নেই, তারা মূলত প্রতারক।’

ইমরান অবিলম্বে জামায়াতি রাজনীতির মুলোৎপাটন কারার আহ্বান জানান সরকারের প্রতি। তিনি বলেন, ‘এ দেশে জামায়াত থাকতে পারে না। আমাদের শিশুরা আর আইএস, আল কায়েদায় যোগ দেবে না। বঙ্গোপসাগরে তারা ভাসবে না।’

সবশেষে সাকা-মুজাহিদের ফাঁসির রায় কার্যকরের আনন্দে রোববার বিকেল ৩টায় গণজাগরণ মঞ্চের পক্ষ থেকে বিজয় মিছিলের ঘোষণা দেন ইমরান এইচ সরকার।



« (পূর্বের সংবাদ)