মেইন ম্যেনু

এ যেন জিরো থেকে হিরো হওয়ার রোমাঞ্চকর কাহিনী!

বলিউডতারকামাত্রই বাড়ি-গাড়ির মালিক এমন ধারনা কম-বেশী সবার ভেতরেই রয়েছে। বিশেষকরে খানিকটা বিখ্যাত হয়ে গেলেতো আর কথাই নেই। এখানে ওখানে কতশত বিলাসবহুলবাড়ি গড়ে ওঠে তাদের। খেতে যান তারা দামী রেষ্টুরেন্টে, অবকাশ যাপনে যানমায়ামি বীচ বা অন্য কোন নয়নাভিরাম ও বিলাসবহুল স্থানে। সত্যি বলতে এসবধারণা খুব যে একটা ভুল তা নয়। বলিউডের বেশীরভাগ তারকাই এসেছেন নামী-দামীপরিবার থেকে। উত্তরাধিকারসূত্রেই কাজ করেছেন এখানে। কিন্তু তাই বলে সবাইনয়। বলিউডের খ্যাতিমান এমন অনেক তারকাই আছেন যাদের প্রথম জীবনের শুরুটাহয়েছিল একেবারে নিঃস্বভাবে। আর তেম কিছু জিরো থেকে হিরো বনে যাওয়া তারকারকথাই নীচে দেওয়া হল। তালিকায় আছেন অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, বোমান ইরানি, শাহিদ কাপুর থেকে শুরু করে আরও অনেকে।

১. অমিতাভ বচ্চন-
শিশু থেকে বুড়ো- কে না চেনে বচ্চন পরিবারের এই প্রধানকে? বলিউডের এইমেগাস্টারকে এক নজর দেখার জন্য তার বাড়ির সামনে প্রতিদিন অপেক্ষা করে থাকেহাজার হাজার মানুষ। তবে এ সবই এখনকার কথা। প্রথম জীবনে অমিতাভ বচ্চনকে যেতেহয়েছিল বেশ কষ্টকর সময়ের মধ্য দিয়ে। এমন একটা সময় ছিল যখন তার কোন থাকারজায়গা ছিল না। নিঃস্ব অবস্থায় দিনের পর দিন মেরিন ড্রাইভের বেঞ্চেই তখন রাতকাটাতেন এলাহবাদ থেকে আগত এই তারকা। ক্যারিয়ারের প্রথমে অতিরিক্ত উচ্চতা ওকন্ঠস্বরের জন্যেও তাকে তাড়িয়ে দিয়েছিলেন অনেকে। যদিও বচ্চনের বেশিরভাগভাক্তই তাকে ভালোবাসে তার উচ্চতা আর কন্ঠস্বরের জন্য।

২. অনিল কাপুর-
স্লামডগ মিলিয়নারখ্যাত এই তারকাকেও প্রথম দিকে বেশ কষ্ট সহ্য করতেহয়েছিল। ১৯৭৯ সালে অনেক চেষ্টায় তিনি কড়া নাড়তে পেরেছিলেন বলিউডের দরজায়ছবি হামারা তুমহারার মাধ্যমে। যদিও ছবির প্রধান চরিত্রে তিনি প্রথম অভিনয়করেন বো সাত দিন নামক ছবিটিতে।

৩. বোমান ইরানি-
থ্রি ইডিয়টসের ভাইরাস খ্যাত এই তারকা বর্তমানে বেশ ভালো অবস্থানে থাকলেওএকসময় তিনি কাজ করেছেন ওয়েটার হিসেবে। তাজমহল প্যালেস হোটেলের খাবারপরিবেশক ছিলেন তিনি। এছাড়াও মায়ের সাথে বেকারীর দোকানও চালাতেন এই পার্সিতারকা। হয়তো এভাবেই চলতো। কিন্তু মুন্নাভাই এমবিএস ছবিটিই তার জীবনে মোড়ঘুরিয়ে দেয়। থিতু হন তিনি বলিউডে।

৪. শাহরুখ খান-
বিলাসবহুল জীবনে অভ্যস্ত বলিউডের এই কিং খান ২৫ বছর আগে ছিলেন দিল্লীরএকজন অতি সাধারন যুবক। অভিনয়ের নেশায় গনসংযোগের ওপর করতে থাকা স্নাতোকোত্তরডিগ্রীর মায়া ছেড়ে মাত্র ১৫০০ টাকা হাতেই রাস্তায় নামেন তিনি। ছেড়ে আসেনমুম্বাই। ফৌজি নামক সিরিয়ালে কাজ কর প্রথমে অভিনয় জগতে নাম লেখান শাহরুখ।আর তারপরেই তিনি মনযোগ কাড়েন যশ চোপড়ার। ডর ছবির মাধ্যমে যশ চোপড়ার হাত ধরেছবির জগতে আসেন তিনি। আর এখন সেই ১৫০০ টাকা পকেটে নিয়ে ঘুরতে থাকা ছেলেটাইএখন বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী তারকা।

৫. ইরফান খান-
১৯৮৮ সালে টিভি সিরিয়াল ভারাত এক খোঁজের মাত্র দুটো এপিসোডের মাধ্যমেবলিউডে পদার্পন করেন এই তারকা। আবিনয় করেন এক ডক্টর কি মউত নামক কম বাজেটেরছবিতে। তবে তার অভিনয় প্রথম সবার নজর কাড়ে আসিফ কাপাডিয়ার ওয়ারিয়র ছবিরমাধ্যমে। এরপর আর পেছনে ফিরতে হয়নি ইরফানকে। হাসিল ও মকবুল নামক ছবিগুলোরমাধ্যমে একের পর এক সাফল্যে শিখায় চড়েছেন তিনি। তার অভিনয়ের ক্ষেত্র এখনহলিউড পর্যন্ত বিস্তৃত। দ্যা মাইটি হার্ট, স্লামডগ মিলিয়নার এবং লাইফ অফপাই ছবিগুলোর মাধ্যমে সবারই মনযোগ কাড়তে সক্ষম হয়েছেন তিনি। এছাড়াও বলিউডেরদ্যা লাঞ্চবক্স এবং পান সিং তৌমার নামক ছবিগুলোও তাকে খ্যাতি এনে দিয়েছেদুহাত ভরে।

৬. জ্যাকি শ্রুফ-
জয় কিষান শ্রুফ ওরফে জ্যাকি শ্রুফের জন্ম একটি মধ্যবিত্ত গুজরাটিপরিবারে হলেও তিন বাত্তি লেনে থাকাকালীন নিজের চালচলনের ফলে বেশ চোখে পড়েনতিনি সবার। এসময় মডেল হিসেবে কাজ করতে থাকা জ্যাকিকে লক্ষ্য করেন সুভাষঘাইও। নিজের হিরো ছবিতে প্রথম তিনি অভিনয় করান জ্যাকিকে। পরে অনিল কাপুরেরসাথে করা বেশ কিছু ছবির বদৌলতে অনিল-জ্যাকি জুটি হিসেবে সবার মনযোগ আকর্ষনকরতে সক্ষম হন তারা।

৭. অক্ষয় কুমার-
খিলাড়িখ্যাত এই তারকা প্রথম জীবনে কাজ করতেন ব্যাঙককের হোটেলের ওয়েটারহিসেবে। সেখানে থালা-বাসনও ধুতেন তিনি এবং রাতেও রান্নাঘরেই ঘুমোতেন। আরমাইনে পেতেন ১৫০০ টাকা। তবে শেষ অব্দি অক্ষয় বলিউডে পা রাখেন। তবে সেটাশুধুমাত্র টাকার কারনেই। তার আগের চাকরির চাইতে বলিউডে উপার্জন বেশী হযবলেই তিনি নিয়মিত হন বলিউডে।

৮. মিঠুন চক্রবর্তী-
বাঙালী বাবু মিঠুন চক্রবর্তীকে প্রথমটায় বেশ কষ্ট করতে হয়েছে বলিউডে।নির্মাতা হৃষিকেশ প্রথম মিঠুনকে সুযোগ দেন তার ছবির এক জুনিয়র আর্টিষ্টহিসেবে। আর এরপরই মিঠুন অভিনয় করেন ডিস্তো ড্যান্সারে। জেতেন জাতীয়পুরষ্কার আর কেড়ে নেন সবার নজর। এরপর আর পেছনে ফিরতে হয়নি বলিউডের এইডিস্কো ড্যান্সারকে।

৯. রজনীকান্ত-
থালাইভারখ্যা রজনীকান্ত সবসময়ই তামিল আর বলিউড জগতের ভগবান হিসেবেছিলেননা। একসময় এই অভিনেতাকেও অভাবের কারণে করতে হয়েছে কুলি এবং বাসকন্ডাক্টরের কাজ। তবে তার প্রথম ছবি অপূর্ব রাগাঞ্জালই তাকে এনে দেয় জাতীয়পুরষ্কার এবং বিখ্যাত অভিনেতার খ্যাতি। এরপর আর থামতে হয়নি থালাইভারকে।

১০. শহীদ কাপুর-
তাল ও দিল তো পাগল হ্যায় ছবির ব্যকগ্রাউন্ড ড্যান্সার হিসেবে প্রথমবলিউডে কাজ করেন শহীদ। আর সেখানেই তিনি নজরে পড়েন পরিচালক রমেশ তাউরানির। আর তার ছবি ইশক ভিশকেই প্রথম অভিনেতা হিসেবে কাজ শুরু করেন শহীদ কাপুর। মাঝখানে নিজের ক্যারিয়ারে খানিকটা ভাঁটা নামলেও সোনাক্ষী সিনহার সাথে জুটিবেঁধে বর্তমানে আবার নিজের আগের ফর্মে ফিরে এসেছেন এই তারকা।