মেইন ম্যেনু

ঐতিহাসিক বালিয়াটি প্রাসাদ

বাংলাদেশে খ্রিস্টীয় উনিশ শতকের একটি অপূর্ব নিদর্শন বালিয়াটি প্রাসাদ। যা মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া উপজেলার বালিয়াটিতে অবস্থিত। বালিয়াটির জমিদার গোবিন্দ রাম সাহা ছিলেন এর প্রতিষ্ঠাতা। তিনি ছিলেন খ্রিস্টীয় আঠার শতকের মাঝামাঝি সময় পর্বের একজন বড় মাপের লবণ ব্যবসায়ী। দধী রাম, পন্ডিত রাম, আনন্দ রাম, এবং গোপাল রাম নামে চারপুত্র রেখে তিনি প্রয়াত হয়েছিলেন। সম্ভবত বালিয়াটি প্রাসাদটি তাদের দ্বারাই নির্মিত হয়। ৫. ৮৮ একর জমির উপর বিস্তৃত এই নিদর্শনটি বিভিন্ন পরিমাপ ও আকৃতির দু ‘শতাধিক কোঠা ধারণ করেছে। উত্তর দিকে রয়েছে ছয়ঘাটা বিশিষ্ট একটি পুকুর এছাড়া ভেতরে রয়েছে সাতটি খন্ডে বিভক্ত স্থাপনা, স্নানাগার, প্রক্ষালন কক্ষ প্রভৃতি। পুরো অংশটির চারদিকে সীমানা প্রাচীর দিয়ে ঘেরা। দক্ষিণ প্রচীরে পাশাপাশি একই ধরনের চারটি লিখান দরজা রয়েছে। প্রতিটির উপর রয়েছে একটি করে সিংহ। স্থাপনাসমূহের আকর্ষণীয় দিক হলো। সারিবদ্ধ বিশাল আকৃতির করিনথিয়াণ থাম, লোহার বীম, ঢালাই লোহার পেঁচানো সিঁড়ি, জানালায় রঙ্গিন কাচ, কক্ষের অভ্যন্তরে বিশাল আকৃতির বেলজিয়াম আয়না, কারুকার্যখচিত দেয়াল ও মেঝে ঝাড়বাতি ইত্যাদি।

বালিয়াটি প্রাসাদটি বর্তমানে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন। প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর কতৃর্ক ১৯৬৮ সনের এন্টিকুইটি এ্যাক্টের ১৪ নং ধারা ,, ১৯৭৬ সনে সংশোধিত এর আওতায় সুরক্ষিত ও সংরক্ষিত হচ্ছে। পশ্চিম দিক থেকে দ্বিতীয় স্থাপনাটির দ্বিতলে একটি অংশে জাদুঘর এ বিভিন্ন প্রচীন নিদর্শন প্রদর্শিত হচ্ছে।

অার বর্তমানে এখানে প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ এই প্রাসাদ দেখার জন্য দূর দুরান্ত থেকে এসে থাকেন।

যেভাবে এখানে অাসবেন : ঢাকার গাবতলী বাস স্টপেজ থেকে সাভার/নবীনগর (অন্য কোন উপায়েও হতে পারে) হয়ে মানিকগঞ্জ জেলার গোলড়া বাস স্টপেজ। অাবার এই গোলড়া থেকে সরাসরি সাটুরিয়া এবং সর্বশেষ বালিয়াটি জমিদার বাড়ি অাসতে পারবেন।