মেইন ম্যেনু

ওবামার চুক্তিতে মানবপাচারকারীরা : চিন্তিত কংগ্রেস

মালয়েশিয়ার সঙ্গে করতে যাওয়া একটি বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস। ওই চুক্তিতে এমন কয়েকজন ব্যবসায়ীর নাম রয়েছে যাদের মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত হিসেবে নামোল্লেখ করেছে মালয়েশীয় পুলিশ। খবর রয়টার্সের।

সম্প্রতি মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়ার উপকূলে মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিম এবং বাংলাদেশী বিদেশ গমনেচ্ছুদের উদ্ধার করা হয়। এর পরপরই মালয়েশিয়ায় মানবপাচারকারীদের ব্যবহৃত নির্যাতন শিবির ও ১৩৯টি কবরের সন্ধান পাওয়া যায়।

এ ঘটনার পর মানবপাচারকারীদের ধরতে অভিযান শুরু করে পুলিশ। পুলিশী অভিযান ও তদন্তে মানবপাচারের সঙ্গে সরাসরি জড়িত বা তাদের প্রতি সহানুভূতিশীল বেশ কয়েক ব্যবসায়ীর নাম উঠে আসে।

মালয়েশিয়ার সঙ্গে টিপিপি (ট্রান্স-প্যাসিফিক পার্টনারশিপ) চুক্তি করার আগে ওই নামগুলোই দুশ্চিন্তায় ফেলেছে কংগ্রেসকে। নানা আলোচনার পর চুক্তি সম্পাদনের গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে রয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। এ অবস্থায় চুক্তিতে ওই ব্যবসায়ীদের রাখা হবে কিনা এ নিয়ে সংশয়ে পড়েছে তার ডেমোক্রেটিক দলের অনেক সদস্যই।

কংগ্রেসের সিনেটর ও ডেমোক্রেট রবার্ট মেনেন্দেজ বলেন, ‘নতুন তথ্যটি খুবই উদ্বেগজনক।’ তিনি জানান, বর্তমান পরিস্থিতিতে মালয়েশিয়া ও অন্যান্য দেশের কালো তালিকাভুক্ত মানবপাচারকারীদের নিয়ে বাণিজ্য চুক্তি সম্পাদনে সমাঝোতায় আসার তেমন সুযোগ নেই।

সম্প্রতি মালয়েশিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের একটি চুক্তি বিল সিনেটে পাস হলেও হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে তা আটকে রয়েছে। মানবপাচার ইস্যুতেই তা আটকে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তবে বিল পাস করাতে ওবামা প্রশাসন বেশ কিছু ছাড় দিতে পারে। কিন্তু এ ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেন মেনেন্দেজের মতো সিনেটররা। কারণ বিরোধী রিপাবলিকান শিবিরে এ ধরনের মনোভাবের লোকের সংখ্যা কম নয়।



« (পূর্বের সংবাদ)