মেইন ম্যেনু

ওয়াটার পার্কে গণলালসার শিকার ২০ যুবতী

সুযোগের সদ্ব্যবহার? পঙ্গপালের মতো ওই একপাল ছেলের কাছে হয়তো তাই। মুফতে ওয়াটার পার্কে প্রবেশের সুযোগ পেয়ে, ঝেঁটিয়ে ঢোকা যাকে বলে, সে ভাবেই পিলপিল করে ঢুকে পড়ে। সে নয় এল। কিন্তু, তার পর যে ঘটনা ঘটল ভিয়েতনামের ওই ওয়াটার থিম পার্কে, তা যে কোনও মেয়ের কাছে দুঃস্বপ্ন। চারদিক থেকে জলে নেমে, মেয়েদের ঘিরে ধরে, সোজা কথায় শ্লীলতাহানি। এবং, তা এতটাই বিশ্রী ভাবে, শুধু কোনও মেয়ে বলে নয়, সুস্থ মস্তিষ্কের যে কেউ-ই তা দেখলে শিউরে উঠবে। নিজেদের সম্মান রক্ষার সুযোগ পর্যন্ত পাননি বিকিনি পরে নিজেদের মধ্যে জলকেলি-করা ওই মেয়েরা।

গত মাসে ভিয়েতনামের ওই পার্ক কর্তৃপক্ষ ফ্রিতে ওয়াটার পার্কে ঢোকার সুযোদ দিয়েছিল। কিন্তু, তা যে এমন বীভত্‍‌স্য নোংরামিতে পরিণত হবে, পার্ক কর্তৃপক্ষ সে আন্দাজ পায়নি। জানা গিয়েছে, কমপক্ষে জনা কুড়ি মেয়েকে যৌন নিগ্রহ করা হয়েছে।

প্রবেশ ফ্রি হওয়ায়, হানই থেকে কিছুটা দূরে ‘হো তয় ওয়াটার পার্ক’-এ সেদিন লোক উপচে পড়ে। সেই ভিড়েই ঢুকে পড়ে জনা সত্তর যুবক। লেজি রিভার রাইডে গিয়ে, শুরু হয় তাদের অসভ্যতামি। এতটাই অকস্মাত্‍‌ ঘটেছে গোটা ঘটনাটা, পার্ক কর্তৃপক্ষও তা সামল দিতে পারেনি।

অভিযোগ, ওই যুবকরা শুধু যৌন নিগ্রহই করেনি, মেয়েদের মাথার চুল ধরে জলে চুবিয়ে ধরে। এমনকী, উচ্ছ্বাস প্রকাশের নামে মেয়েদের বিকিনি পর্যন্ত খুলে দেয়।

নিগ্রহের শিকার এক তরুণী বর্ণনাও দেন। ‘লেজি রিভারে নেমে আমরা তিন বান্ধবী খেলছিলাম। মিনিট তিনেক হয়েছে। আচমকা পিছন থেকে হুল্লোড় শুনে ফিরে তাকালাম। দেখলাম, একশোর বেশি ছেলে আমাদের দিকেই ধেয়ে আসছে। চারদিক থেকে তারা জলে নেমেছে। নিজেরা নিরাপদে উঠে আসার সময় পাইনি। এর মধ্যে কয়েক জন আমাদের চুলের মুঠি ধরে, জলে চুবিয়ে উল্লাস করতে থাকে। বুঝতে পারলাম, এর মধ্যেই কয়েকজন আমার বুকে, গোপনাঙ্গে হাত দিচ্ছে। পলক ফেলার আগেই কেউ একজন হ্যাঁচকা টানে আমার বিকিনির টপটা খুলে দেয়। ওই অবস্থাতেই আমাকে ওরা পুল থেকে টেনে ওপরে তোলার চেষ্টা করে। তখন বেশ বুঝতে পারছি, আমি পুরোপুরো নগ্ন…।’

আর একজন উল্লেখ করেছেন, আমার বোন ওর বন্ধুদের সঙ্গে ওয়াটার পার্কে গিয়েছিল। ফিরে যখন এল, বিধ্বস্ত অবস্থা। কিছু জিগ্যেস করার আগেই হাউহাউ করে কেঁদে ফেলে। ঘাড়ে, পিঠে নখের দাগ।

ওই অসভ্যতামির ছবি ক্যামেরায় ধরা পড়লেও, ওয়াটার পার্কের ভায়েস ম্যানেজিং ডিরেক্টর যৌন নিগ্রহের অভিযোগ অস্বীকার করেন। আশ্চর্যজনক তাঁর বক্তব্য, জলকেলিতে মেয়েদের বিকিনি খুলে গেছে, সেটা তাঁদের বিকিনির ত্রুটি, এর সঙ্গে যৌন নিগ্রহের কোনও সম্পর্ক নেই।

সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল হয়ে ঘুরছে সেই যৌন নিগ্রহের ফুটেজ। ফিয়োনা ডেভিডসন নামে এক মহিলা যৌন নিগ্রহের অভিযোগ দায়ের করেছেন।