মেইন ম্যেনু

‘ও শরীর বেচে খায়’— নামজাদা অভিনেত্রী সম্পর্কে বেনজির মন্তব্য ফারহানের

দিন কয়েক বেঙ্গালুরুতে ঘটে গিয়েছে এক ন্যক্কারজনক ঘটনা। নববর্ষের রাতে প্রকাশ্য রাস্তায় সেখানে সম্মানহানির শিকার হয়েছেন মহিলারা। সেই ঘটনা প্রসঙ্গে সমাজবাদী পার্টির মহারাষ্ট্র শাখার প্রধান আবু আজমি যে মন্তব্য করেছেন, তা-ও যথেষ্ট সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছে। আবু নিগৃহীতা মেয়েদের কাঁধেই সমস্ত দোষ চাপিয়ে দিয়ে বলেন, ‘সন্ধের পরে নিজের স্বামী অথবা বাবা ছাড়া অন্য কোনও পুরুষের সঙ্গে মেয়েদের বেরনো উচিত নয়। সেটা আমাদের দেশের সংস্কৃতির বিরোধী।’ অনেকেই আবুর এই মন্তব্যে পুরুষতান্ত্রিক সংকীর্ণতার চিহ্ন খুঁজে পেয়েছেন। এ বার আবুর ছেলে ফারহানও এই প্রসঙ্গে কুরুচিকর মন্তব্য করে বসলেন।
আসলে দিন কয়েক আগে অভিনেত্রী এষা গুপ্ত টুইটারে আবুর ওই মন্তব্যের সমালোচনা করেন। ‘জন্নত টু’-এর নায়িকা এই প্রসঙ্গে লেখেন, ‘গোটা ঘটনায় কেবল এক জন মহিলাকেই দায়ী করা চলে, এবং তিনি আবু আজমির মা, যিনি নিজেও সম্ভবত আবুর মতো এক জন অপগণ্ডকে জন্ম দেওয়ার জন্য নিজেকে দোষারোপ করে থাকেন।’

এতেই ক্ষেপে যান আবুর ছেলে ফারহান আজমি। প্রসঙ্গত বলে রাখা যাক, এই ফারহান হলেন বলিউড-নায়িকা আয়েষা টাকিয়ার স্বামী। ফারহান এষাকে নগ্ন ভাবে আক্রমণ করে টুইটারে লেখেন, ‘যারা শরীর বেচে খায়, তাদের আমরা বেশ্যা নাম দিয়ে অপমান করে থাকি। আর যারা বহু মানুষের সামনে নিজের শরীর দেখিয়ে কোটি কোটি টাকা রোজগার করে, তাদেরই বা সম্মান দেব কেন?’

ফারহানের ইঙ্গিতটা স্পষ্ট। তিনি ঘুরিয়ে এ কথাই বলতে চান যে, এষা নিজের শরীর প্রদর্শন করে উপার্জন করেন। অতএব তাঁর কথায় গুরুত্ব দেওয়ার প্রয়োজন নেই।
সঙ্গে সঙ্গে সমালোচনার ঝড় ওঠে টুইটারে। অনেকেই মন্তব্য করেন, এ হেন মন্তব্যের মাধ্যমে সমগ্র অভিনেত্রী-কূলকে অপমান করছেন ফারহান। কেউ বা বলেন, ফারহান কি ভুলে গিয়েছেন যে, তাঁর স্ত্রী আয়েষাও এক সময়ে এষার মতোই অভিনয়ের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন?

এষা নিজে ফারহানের এই মন্তব্যের বিপরীতে সংক্ষিপ্ত অথচ মোক্ষম একটি জবাব দিয়েছেন। টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘ঠিক আছে… সংকীর্ণ মনের মানুষরা বেশি গুরুত্ব পাওয়ার যোগ্যও নয়।’ যা দেখে টুইটার-গ্রাহকরা বলছেন, একেবারে উপযু্ক্ত উত্তর দিয়েছেন এষা।