মেইন ম্যেনু

কক্সবাজার সোসাইটির সভা অনুষ্ঠিত প্রকাশিত সংবাদের হটকারী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ ও নিন্দা

গত ১৯ জুলাই কক্সবাজারের স্থানীয় কয়েকটি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত “কক্সবাজার সোসাইটির সভা অনুষ্ঠিত” সংবাদটিতে সাংবাদিক মোঃ আমান উল্লাহকে সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে অব্যাহতি এবং জনৈক ড. মোঃ নুরুল আবছার কে “ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক” হিসাবে মনোনিত করা হয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, বিভ্রান্তিকর ও মানহানী কর।

ওই দিনের সভায় এই ধরনের কোন সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়নি। এমনকি সভায় কার্যকরী কমিটির ৫জন সদস্য উপস্থিত থাকার কারণে কোরাম পূর্ণ হয়নি। সুতরাং সাধারণ সম্পাদক কে অব্যাহতি দেওয়া কিংবা অন্যান্য সিদ্ধান্ত গ্রহনের প্রশ্নই উঠে না। সভায় কার্যকরী কমিটির আগামী সভায় সকলের সম্মতিক্রমে কমিটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করার বিষয়ে উপস্থিত সকলে সম্মতিজ্ঞাপন করেন।

এমতাবস্থায় আমি নিু স্বাক্ষরকারী স্বপদে বহাল আছি এবং সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত বিবৃতিখানা প্রত্যাহারের অনুরোধ জানাচ্ছি। পাশাপাশি সংগঠনের সকলকে এ ব্যাপারে বিভ্রান্ত না হওয়ারও অনুরোধ জানাচ্ছি। সভাপতি পরিকল্পিতভাবে গুটিকয়েক কুচক্রিকে সাথে নিয়ে নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য বিধি বর্হিভূত ও অগণতান্ত্রিকভাবে হঠকারী সিদ্ধান্ত নিয়ে মিথ্যা সংবাদটি পরিবেশন করেছেন।

অভিযোগে প্রকাশ, সভাপতি বেশ কিছুদিন যাবৎ আর্থিক লোভের বশিভূত হয়ে গুটিকয়েক কুচক্রী মহলের ইন্দনে নিজেদের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য সংগঠনের নাম ব্যবহার করে অপতৎপরতা চালিয়ে আসছিল। তাহার এহেন অনৈতিক কুকর্মের প্রতিবাদ করতে গিয়ে বিভিন্ন সময় সভাপতির সাথে আমার কথা কাটাকাটি হয়। এরই ধারাবাহিকতায় সভাপতি উড়ে এসে জুড়ে বসা গুটি কয়েক হাইব্রিড ও ফর্মালিন নেতার প্ররোচনায় পদভ্রষ্ট হয়ে সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপে লিপ্ত রয়েছে।

সম্প্রতি সভাপতির কার্যকলাপ দেখে মনে হচ্ছে ওই সংগঠনটি তার নিজস্ব সম্পত্তি। ইতিপূর্বে বিভিন্ন সময়ে তার অগনতান্ত্রিক কার্যকলাপের প্রতিবাদ করতে গিয়ে সংগঠনের অনেক ত্যাগী নেতাকে বহিস্কার হতে হয়েছে।
সংগঠন বিরোধী স্বৈরচারী মনোভাবের কারণে সভাপতির অগোচরে গুটিকয়েক ব্যক্তি সোসাইটিকে বির্তকিত করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। এসবের বিরুদ্ধে সংগঠনের ত্যাগী কর্মীদেরকে সজাগ থাকার আহবান জানাচ্ছি। অন্যথায় সংগঠনের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হওয়ার আশংকা রয়েছে।