মেইন ম্যেনু

কঙ্গনাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন হৃতিক

আইনি নোটিশ পাঠানোর পর থেকেই হৃতিক রোশান ও কঙ্গনা রণৌতের মধ্যে সম্পর্ক যেন আরো খারাপ রূপ ধারণ করছে। তাদের সম্পর্কের একের পর গোপন তথ্য ফাঁস হচ্ছে সবার সামনে।

সম্প্রতি একে অন্যের বেশ কিছু গোপন তথ্য ফাঁস করেন হৃতিক-কঙ্গনা। এবার কঙ্গনার এক বন্ধু জানালেন কঙ্গনাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন হৃতিক।

ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কঙ্গনার এক বন্ধু বলেন, ‘২০০৯ সালে কাইট সিনেমার শুটিংয়ের সময় তাদের (হৃতিক ও কঙ্গনা) মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। তার (হৃতিকের) দাম্পত্য জীবন নিয়ে ঝামেলা চলছিল এবং কাইট সিনেমার সহ-অভিনেত্রী ম্যাক্সিকান মডেল বারাবারা মোরের সঙ্গেও তার সম্পর্ক টেকেনি। কঙ্গনাও সে সময় অনেক ঝামেলায় ছিলেন। পরবর্তী সময়ে তারা পরস্পরের সান্নিধ্যে আসেন এবং একে অন্যের ভালো বন্ধু হয়ে যান।

তাদের মধ্যে সম্পর্ক আরো গাঢ় হয় যখন হৃতিক তার বাবার পরিচালনায় কৃষ-থ্রি সিনেমায় কঙ্গনাকে অভিনয়ের প্রস্তাব দেন। যদিও ওই সময় ক্যারিয়ার নিয়ে ভালো সময় পার করছিলেন না কঙ্গনা তবু তিনি প্রস্তাবটি নাকচ করেন। প্রায় ছয় মাস তাকে জোরাজুরি করার পর অবশ্য তিনি রাজি হয়েছিলেন। এরপর যখন তারা সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন, তখন হৃতিক তার কাছে প্রকাশ করেন যে তিনি ও সুজান আলাদা ঘরে ঘুমান। কঙ্গনা কখনো তার প্রেম নিয়ে মুখ খোলেননি কারণ হৃতিক সব সময়ই তাকে বলে এসেছেন, তিনি সুজানকে কখনোই ডিভোর্স দেবেন না।’

এরপর কঙ্গনাকে হৃতিকের প্রস্তাবের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘২০১৩ সালের ডিসেম্বরে কঙ্গনার কাছে হৃতিকের একটি ফোন কল আসে এবং সেটি শুনে তিনি অবাক হয়ে যান। হৃতিক জানান, তিনি সুজানকে ডিভোর্স দিতে চান। সে সময় কঙ্গনা সুইজারল্যান্ডে ছিলেন এবং হৃতিক ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে।’

কঙ্গনা ভীষণ খুশি হয়েছিলেন যখন হৃতিক তাকে বলেন ডিভোর্সের পর তিনি কঙ্গনাকে বিয়ে করতে চান। কিন্তু এতে কঙ্গনার মনে সংশয় দেখা দেয়। তিনি বুঝতে পারছিলেন না যে হৃতিক বিষয়টিকে গুরুত্ব দিচ্ছেন কি না। কঙ্গনার সব সংশয় দূর করতে ভালোবাসার শহর খ্যাত প্যারিসে হৃতিক তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। কিন্তু তারপর থেকেই তাদের সম্পর্কের অবনতি হতে শুরু করে।’