মেইন ম্যেনু

কট্টর ডানপন্থীদের খপ্পরে বিএনপি, ছাড়ছে না জামায়াত

নতুন ঘোষণা করা কমিটিতে কট্টর ডানপন্থীদের চাপে জামায়াতকে আর ছেড়ে আসতে পারবে না বিএনপি। এমনকি সন্ত্রাসবিরোধী জাতীয় ঐক্যের যে কথা দলটি বলেছিল তাও আর হচ্ছে না। বিএনপির নীতিনির্ধারকরা এ বিষয়ে অনেকটাই নিশ্চিত করেছেন। বিএনপির একাধিক স্থায়ী কমিটির সদস্য অনেকটাই খোলাখুলিভাবে নতুন ঘোষণা করা কমিটি নিয়ে তাদের ক্ষোভের কথা প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি বিএনপি-জামায়াতের সম্পর্ক এবার টিকে গেল বলেও নিশ্চিত করেছেন তারা।

স্থায়ী কমিটির সদস্যরা বলেছেন, দলে এখন মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি কোণঠাসা হয়ে পড়েছে। যোগাযোগ করলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহ টেলিফোনে বলেন, কমিটি করলেও যা দেখা যাচ্ছে তা হল দলে জামায়াতবিরোধীরা সংখ্যালঘু হয়ে যাবে। আর স্থায়ী কমিটির অন্য সদস্য মাহাবুবুর রহমান বলেন, এই কমিটিতে ডানপন্থীদের তীব্র প্রভাব পরিষ্কার। এদের চাপে জামায়াত ছেড়ে বের হওয়া মুশকিল হবে। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মহলসহ বিএনপির তৃণমূল চায় জামায়াত ছেড়ে দল বের হয়ে আসুক।

জঙ্গিবাদবিরোধী জাতীয় ঐক্য নিয়েও হতাশা প্রকাশ করেন মাহাবুবুর রহমান। তিনি বলেন, জাতীয় ঐক্যের ডাকেতো কেউ সাড়া দিল না। এক কাদের সিদ্দিকী যাও বেগম জিয়ার সঙ্গে দেখা করল, কিন্তু বেরিয়ে এসে পরের দিনতো নেতিবাচক কথা বলল।

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গনে গত ১৯ মার্চ ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠানের ১০ দিন পর মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ও কোষাধ্যক্ষ মিজানুর রহমান সিনহার নাম ঘোষণা করা হয়। এরপর তিন দফায় যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নিয়ে কমিটির ৪২ জনের নাম ঘোষণা করা হয়।

সর্বশেষ দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয় নয়াপল্টনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে জাতীয় সম্মেলনের চার মাস ১৬ দিন পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেন।

বিএনপি ঘোষিত কমিটিতে নতুন ১৭ জনকে স্থায়ী কমিটিতে, ৭৩ জনকে উপদেষ্টা, ৩৫ জন ভাইস চেয়ারম্যান, যুগ্ম মহাসচিব, সম্পাদক ও সহ-সম্পাদক মিলে ১৭৪ জন এবং সদস্য রাখা হয়েছে ২৯৩ জনকে। সদস্যদের মধ্যে ১১৩ জন নতুন। এছাড়া ৫০২ জন নির্বাহী কমিটিতে স্থান পেয়েছেন। এদের মধ্যে ৪৯৮ জনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। বাকিদের নাম পরে জানানো হবে। -পরিবর্তন