মেইন ম্যেনু

কথা বলা অবস্থায় মোবাইল বিস্ফোরণ, গুরতর আহত এক বালক

আমরা অনেকেই মোবাইল ফোনটি চার্জে দিয়ে কথা বলে থাকি। তবে এতদিন যারা এই কাজটি না জেনে করেছেন তাদের কে বলছি, আজ থেকে সাবধান হতে হবে। কারণ এই ফোটি-ই হতে পারে আপনার মৃত্যুর একমাত্র কারণ! বিশ্বাস নাহলে জেনে নিন, এমনি একটি ঘটনা ঘটেছে ভারতের চেন্নাইয়ে। মোবাইল ফোনটি চার্জে লাগানো ছিল আর তখনি একটি ফোন আসে মোবাইলে। ফোনটি হাতে নিয়ে কথা বলতে শরু করে নয় বছরের একটি বালক। আর তখনি ঘটে এই দুর্ঘটনা। আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে এ খবর জানা যায়।

শিশুটির বাঁ চোখের মণিটা ফেটে গিয়েছে। আর ডান চোখের কর্নিয়াটা পুরোপুরি নষ্ট হয়ে গিয়েছে তার। ডান হাতটা মারাত্মক ভাবে পুড়ে গিয়েছে। পুড়ে গিয়েছে মুখেরও অনেকটা অংশ। শিশুটিকে দ্রুত নিয়ে যাওয়া হয় চেন্নাইয়ের একটি হাসপাতালে। সেখানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা নড়ছে শিশুটি। ন’বছরের ছেলেটিকে প্রায় মেরেই ফেলেছিল এই মোবাইলটি! আর এই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী আবার সেই মোবাইলই!

পুলিশ সূত্রে খবর, মোবাইলটিতে তখন চার্জ দেয়া হচ্ছিল। সেই সময়েই ওই মোবাইলে একটি ফোন আসে। শিশুটি তড়িঘড়ি গিয়ে মোবাইলটি হাতে নিয়ে কথা বলতে শুরু করার কিছু ক্ষণের মধ্যেই অনেক শব্দে করে ফেটে যায় মোবাইলটি। দুম করে ফেটে যাওয়ার শব্দের সঙ্গে সঙ্গেই শোনা যায় শিশুটির আর্ত চিৎকার। শিশুটির নাম ধনুষ। ঘটনাটা ঘটেছে চেন্নাইয়ের ৮৬ কিলোমিটার দূরে মাদুরান্টাকমে, গত সপ্তাহে।

শিশুটিকে যে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে, তার প্রধান চিকিৎসক ওয়াহিদা নাজির জানিয়েছেন, ‘মোবাইলটা এত জোরে ফেটেছে, যার কারণে শিশুটির বাঁ চোখের মণিটা ফেটে গিয়েছে এবং ডান চোখের কর্নিয়াটাও পুরোপুরি নষ্ট হয়েছে। তার মুখের অনেকটা অংশ পুড়ে গিয়েছে। ডান হাতটাও মারাত্মক ভাবে পুড়ে গিয়েছে। তিন সপ্তাহের আগে ওকে হাসাপাতাল থেকে কোনো ভাবেই ছাড়া যাবে না।’