মেইন ম্যেনু

কথা রেখেছেন দুই মেয়র

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ঈদ-পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার আগেই কুরবানির বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক ও সাঈদ খোকন বৃহস্পতিবার গুলশান ও নগর ভবনে আয়োজিত পৃথক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান।

তারা বলেন, জনগণের সার্বিক সহায়তা ও ডিসিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্তরিক প্রচেষ্টার ফলে বর্জ্য অপসারণ সম্ভব হয়েছে। সিটি কর্পোরেশনের নির্ধারিত স্থানে অধিকাংশ পশু জবাই হয়নি স্বীকার করে তারা বলেন, স্বল্প সংখ্যায় হলেও নির্দিষ্ট স্থানে পশু জবাইয়ের যে রীতি চালু হয়েছে, আগামী দুই-চার বছরের মধ্যে নগরবাসী তাতে অভ্যস্ত হয়ে পড়বে।

মেয়র আনিসুল হক সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে ডিসিসি সফল কিনা জানতে চান। এ সময় তিনি স্মিত হেসে বলেন, মিডিয়ার লোকজন ভালো বললে কাজের অনুপ্রেরণা বাড়ে। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে নির্দিষ্ট স্লটার হাউজ তৈরি করে সেখানে পশু কুরবানি হবে। ডিসিসি উত্তরে ৭, ১৪, ১৮ নম্বরসহ বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডে সবচেয়ে ভালো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালিত হয় বলে জানান আনিসুল হক।

সাঈদ খোকন বলেন, অধিকাংশ এলাকায় বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম প্রায় শেষ। যেসব পাড়া-মহল্লায় কিছু কাজ বাকি রয়েছে তা আজকের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে।