মেইন ম্যেনু

কপাল মন্দ কার্টার মুস্তাফিজের

গত বছর পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি অভিষেকেই আলো ছড়িয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। ক্যারিয়ারের শুরুতেই শহিদ আফ্রিদির মতো তারকাকে দুর্দান্ত ডেলিভারিতে পরাস্ত করেন। ক্রিকেট দুনিয়ার নজর কাড়ার সূচনাটা ঠিক তখনই। এরপর ভারতের বিপক্ষে যা করে দেখিয়েছেন তিনি, তা অবিশ্বাস্যই বটে। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে অভিষেক ঘটে তার। ওই ম্যাচেই টিম ইন্ডিয়ার বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানকে সাজঘরের পথ দেখান। তুলে নিলেন ৫ উইকেট। বনে যান ম্যাচসেরা।

সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে তার রূপটা হলো আরো ভয়ঙ্কর। এবার ভারতের ৬ ব্যাটসম্যানকে শিকার করলেন। এভাবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তার কার্টারের কাজটা চলতে থাকে। ক্রিকেট দুনিয়ায় তাই কার্টার মুস্তাফিজ নামেই পরিচিতি লাভ করেন। বিপিএলে ঢাকার হয়ে আলো ছড়ান মুস্তাফিজ।

বিদেশি লিগে প্রথম ডাক পান পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল)। কিন্তু বোর্ডের অনুমতি না পাওয়ার সেখানে খেলা হয়নি তার। সেই ক্ষতে কিছুটা হলেও লেপন দিয়েছে আইপিএল! ১ কোটি ৪০ লাখ রুপির বিনিময়ে তাকে দলে টেনেছে হায়দরাবাদ সানরাইজার্স।

এবার বিদেশি লিগে খেলার আরেকটি সুযোগ এসেছিল মুস্তাফিজের সামনে। ক্যারিবীয়ান সুপার লিগে (সিপিএল) প্লেয়ার ড্রাফটে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহামুদউল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েসের সঙ্গে ছিলেন তিনিও। কিন্তু কপাল মন্দ মুস্তাফিজের। সিপিএলের কোনো ফ্রাঞ্চাইজি তাকে দলে টানেনি।

একমাত্র বাংলাদেশি প্রতিনিধি হিসেবে সাকিবকে দলে নিয়েছে জ্যামাইকা তালাওয়াশ। তাই মুস্তাফিজের মতো সিপিএলে খেলা হচ্ছে না তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহামুদউল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েসের!