মেইন ম্যেনু

কবি নির্মলেন্দুকে প্রশ্ন ছুড়ে যা বললেন তসলিমা নাসরিন

সম্প্রতি বাংলা একাডেমি, একুশে পদকসহ গুরুত্বপূর্ণ সব পুরস্কার পেলেও এখনও রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মাননা স্বাধীনতা পদক না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জনপ্রিয় কবি নির্মলেন্দু গুণ। এক প্রতিক্রিয়ায় কবির উদ্দেশে নির্বাসিত নারীবাদী লেখক তসলিমা নাসরিন বলেছেন, ‘অনেক তো পুরস্কার পেলেন! আরও পেতে হবে?’

শনিবার তসলিমা নাসরিন তার ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে নির্মলেন্দু গুণের উদ্দেশে এ প্রশ্ন ছুড়ে দেন।

তিনি বলেন, ‘শুনলাম কবি নির্মলেন্দু গুণ নাকি স্বাধীনতা পদক পাওয়ার জন্য ক্ষেপেছেন! অনেক তো পুরস্কার পেলেন! আরও পেতে হবে? কী হয় এসব পুরস্কারে?’

পুরস্কার নিয়ে শ্লেষের ভঙ্গিতে তিনি লেখেন, ‘কিছু লোকের হাততালি পাওয়া যায়, আর সম্ভবত কিছু টাকা পাওয়া যায়! টাকা তো সেদিনও হাসিনা দিয়েছেন তাঁকে। হয়তো তিনি মনে করছেন স্বাধীনতা পদক পাওয়ার যোগ্য তিনি, তাই পদক দাবি করছেন। কত কেউ তো কত কিছুর যোগ্য। সবারই কি সবকিছু পাওয়া হয়? গ্রাহাম গ্রীন যে অত বড় লেখক, নোবেল তো পাননি। তাতে কী! গ্রাহাম গ্রীন গ্রাহাম গ্রীনই থেকে যাবেন। নোবেল বরং আফসোস করে যাবে বাকি জীবন।’

১০ মার্চ কবি নির্মলেন্দু গুণ ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে লিখেছিলেন, ‘আমার একদা সহপাঠিনী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচারব্যর্থতাদৃষ্টে আমি প্রথম কিছুকাল অবাক হয়েছিলাম— এখন খুবই বিরক্ত বোধ করছি। অসম্মানিত বোধ করছি।’

হাসিনার উদ্দেশে নির্মলেন্দু গুণ বলেছিলেন, ‘আমাকে উপেক্ষা করার বা সামান্য ভাবার বা তুচ্ছ জ্ঞান করার সাহস যার হয়, তাকে উপেক্ষা করার শক্তি আমার ভিতরে অনেক আগে থেকেই ছিল এবং আশা করি এখনও রয়েছে।’ প্রধানমন্ত্রীকে তার ‘ভুল’ সংশোধন করার পরামর্শ দেন তিনি।

নিজের সংগ্রামমুখর জীবনের বর্ণনা দিয়ে তসলিমা নাসরিন বলেন, ‘আমি তো বাংলাদেশের মানুষের ভালোর জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে, দেশ- সমাজ-পরিবার-স্বজন হারিয়ে, ঘরবাড়ি-বিষয় আশয় বিসর্জন দিয়ে প্রায় তিন যুগ হলো লিখছি। আমি তো অপমান আর লাঞ্ছনা ছাড়া ও দেশ থেকে কিছু পাইনি। পুরস্কার? প্রশ্নই ওঠে না। পুরস্কার পাইনি বলে তো একটুও রাগ বা দুঃখ হয় না আমার!’

‘নির্মলেন্দু গুণ বাংলাদেশের কবি লেখকদের মধ্যে,আমি মনে করি, খুবই ভাগ্যবান। খুব কম লেখকই জীবদ্দশায় তাঁর মতো আদৃত, সম্মানিত হয়েছেন। খুব কম লেখকই এত লোকপ্রিয়তা পেয়েছেন। মানুষ তাঁর লেখা পড়তে ভালোবাসে, এটিই কি একজন লেখকের জন্য সবচেয়ে বড় পুরস্কার নয়? সবচেয়ে দামি পদক নয়?’ বলেন তসলিমা।

১০ মার্চ ক্ষোভ প্রকাশ করে ফেসবুকে কবি নির্মলেন্দু গুণের স্ট্যাটাসের পর এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে বিভিন্ন গণমাধ্যম। ফেসবুকে এ নিয়ে এখনও আলোচনা-সমালোচনা চলছে।