মেইন ম্যেনু

কবে বিয়ে করছেন সাক্ষী মালিক? পাত্রই বা কে? জানিয়ে দিলেন পদকজয়ী মেয়ে

সাক্ষী মালিক কবে বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন, তা নিয়ে কৌতূহল অনেকের। তিনি স্বয়ং জানিয়ে দিয়েছেন বিয়ের পরিকল্পনা।

সাক্ষী মালিক ভারতকে এনে দিয়েছিলেন প্রথম পদক। দেশের কেউ তাঁকে ধর্তব্যের মধ্যেই রাখেননি। অথচ বিশ্বের মঞ্চে সাক্ষী পদক জিতে দেখিয়ে দেন কিছুই অসম্ভব নয়। এ হেন সাক্ষী মালিক সংবর্ধিত হয়েছেন। তাঁকে অভিনন্দন জানানো হয়েছে। আগামী দিনের পরিকল্পনা কি করে রেখেছেন সাক্ষী? মহিলা এই কুস্তিগির কবে বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন, তা নিয়ে কৌতূহল অনেকের। রিও থেকে পদক জিতে দেশের ফেরার পরে এই প্রশ্ন শুনতে হয়েছে তাঁকে। উত্তরে কী বলছেন সাক্ষী? বিয়ের পরিকল্পনাও জানিয়ে দিয়েছেন উপস্থিত সাংবাদিকদের। সাক্ষীর কথায়, পরবর্তী অলিম্পিক্সের কথা তাঁর মাথায় ঘোরাফেরা করছে। টোকিও অলিম্পিক্স থেকে সোনা জেতাই তাঁর উদ্দেশ্য। এর পরেই রয়েছে তাঁর বিয়ের পরিকল্পনা। সাক্ষী বলেছেন, ‘‘আগে টোকিও অলিম্পিক্স থেকে সোনা জিতব, তার পরে বিয়ের কথা চিন্তা করব।’’ সাক্ষী মালিক বুঝিয়ে দিয়েছেন, তিনি বিয়ের জন্য লালায়িত নন। টোকিও অলিম্পিক্স থেকে সোনা জেতাই তাঁর প্রথম এবং প্রধান লক্ষ্য।

ঘটনা হল, কিরঘিজস্তানের প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে প্রথমটায় পিছিয়ে পড়েছিলেন সাক্ষী। কিন্তু নাছোড় মনোভাবে খেলায় ফিরে আসেন ২৩ বছর বয়সি এই ভারতীয় কন্যা। ০-৫ পিছিয়ে থাকা অবস্থা থেকে শেষ পর্যন্ত ৮-৫-এ জেতেন তিনি। শেষ মুহূর্তে চরম উত্তেজনার জায়গায় পৌঁছেছিল সাক্ষীর লড়াই। সাক্ষীর প্রতিপক্ষ রিভিউয়ের আবেদন জানিয়েছিলেন। সেই আবেদন সাক্ষীর বিরুদ্ধে গেলে অলিম্পিক্সে প্রথম পদক জয়ের জন্য ভারতের অপেক্ষা আরও বাড়ত। সাক্ষীর কোচ জানতেন, ছাত্রীর জয় নিশ্চিত। রিংয়ের পাশেই জাতীয় পতাকা হাতে অপেক্ষা করছিলেন সাক্ষীর কোচ। সাক্ষীর প্রতিপক্ষের রিভিউয়ের আবেদন বিচারকরা নাকচ করার সঙ্গেই প্রথম ভারতীয় মহিলা কুস্তিগির হিসেবে অলিম্পিক্সে পদক জিতে ইতিহাস গড়ে ফেলেন সাক্ষী।