মেইন ম্যেনু

কর্মীর কাটা হাত নিয়ে ছাত্রলীগের উল্লাস

পাবনা: কমিটি গঠন নিয়ে বিরোধের জের ধরে ঈশ্বরদীতে নিজ দলের কর্মীর হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে ছাত্রলীগের অপর গ্রুপের কর্মীরা। শুধু তাই নয় বিচ্ছিন্ন করা হাতটি নিয়ে বিভিন্ন স্থানে উল্লাসও করেছেন তারা।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার পাকশী নর্থবেঙ্গল পেপার মিলের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় ছাত্রলীগ কর্মী সৌরভ হোসেন টুনটুনিকে (১৭) রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি ঈশ্বরদীর দিয়ার বাঘইল গ্রামের অটোরিকশা চালক শাহীন আলীর ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার পাকশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি গঠন নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে সভাপতি ছদরুল আলম পিন্টু গ্রুপের সঙ্গে সম্পাদক মিরাজ হাসান গ্রুপের বিরোধ চলে আসছিল। সোমবার সভাপতি গ্রুপের কর্মীরা মোটর সাইকেলযোগে সম্পাদক গ্রুপের অনুসারী সৌরভ হোসেন টুনটুনিকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যান। পাকশীর নর্থবেঙ্গল পেপার মিলের সামনে নিয়ে রাস্তার পাশে শুইয়ে টুনটুনির বাম কাঁধের নীচ থেকে ধারালো চাপাতি দিয়ে হাত বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এ সময় ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে রক্তাক্ত করে সেখান থেকে চলে যান সভাপতি গ্রুপের কর্মীরা।

শুধু তাই নয় বীরদর্পে চলে যাওয়ার সময় টুনটুনির শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করা হাতটি নিয়ে মোটর সাইকেলযোগে উল্লাস করতে করতে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে ছাত্রলীগ কর্মীরা। বিবিসি বাজার, রূপপুর মোড় ও পাকার মোড় এলাকায় বিচ্ছিন্ন করা হাত নিয়ে উল্লাস করেন তারা।

এ ব্যাপারে পাকশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ছদরুল আলম পিন্টু জানান, ঝামেলা হয়েছে। টেনশনে আছি। এসব বিষয়ে একান্তে কথা বলাই ভালো-এমন উক্তি করেই তিনি মুঠোফোন কেটে দেন।

ঈশ্বরদী সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) শাহনুর আলম পাটোয়ারী জানান, তিনি বদলি হয়ে গেছেন। বিস্তারিত থানার ওসি বলতে পারবেন।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিমান কুমার দাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ছাত্রলীগ কর্মী টুনটুনিকে রাজশাহী মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছেন। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে বলেও জানান তিনি।