মেইন ম্যেনু

কলারোয়ায় স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টায় ‘গ্রামপুলিশ’ আটক

সাতক্ষীরা কলারোয়ায় উপজেলার কেঁড়াগাছি ইউনিয়নের গোয়ালচাতর গ্রামের দরিদ্র কৃষক আমিরুল ইসলামের মেয়ে হঠাৎগঞ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী (১৩)কে ধর্ষনের চেষ্টায় এক চৌকিদারকে (গ্রাম পুলিশ) আটক করেছে থানা পুলিশ।
ছাত্রীর পিতা আমিরুল ইসলাম জানান, প্রাইভেট মাস্টার শাহাজানের কাছে পড়তে যাওয়ার সময় গোয়ালচাতর গ্রামের মৃত তফে চৌকিদারের ছেলে তৌহিদুজ্জামান চৌকিদার মিলন তার মেয়েকে পার্শ্ববর্তী বাগানে নিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা করে। বহু অপকর্মের নায়ক ও ধর্ষনে ব্যর্থ মিলনকে ধর্ষনের দায়ে শনিবার দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে জিঙ্গাসা করলে সে তাকে পছন্দ করে স্বীকার করায় তাকে আটক করে।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, প্রতিদিন সকালে স্কুল ছাত্রী প্রাইভেট পড়ার জন্যে বাড়ি থেকে বাঘাডাঙ্গা গ্রামের মাস্টার শাহাজানের নিকট পড়তে যায়। পথিমধ্যে জামতলা নামক স্থানে পৌছালে আগে থেকে উৎ পেতে থাকা মিলন তাকে গতিরোধ করে এবং মুখ বেধে পার্শ্ববর্তী বাগানে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে তার মুখের বাধন খুলে গেলে তার ডাক-চিৎকারে এলাকাবাসী ও পথচারিরা এগিয়ে আসলে ঘটনাস্থল থেকে মিলন পালিয়ে যায়।
কৃষক আমিরুল ইসলাম ও তার মেয়ে এ ব্যাপারে লিখিত ভাবে ইউনিয়ন পরিষদে জানালে ৫নং কেঁড়াগাছি ইউপি দফাদার মিলনকে আটক করে পরিষদে নিয়ে আসে।
এদিকে এলাকাবাসির সূত্রে জানা যায়, মিলনের নামে বহু অভিযোগ রয়েছে। মিলন বিশ্বাস পার্শবর্তী জালালের ঘরের বেড়া ভেঙ্গে তার মেয়েকে ধর্ষন করতে গেলে মেয়ের ডাক চিৎকারে তার বাবা-মা মিলনকে হাতে নাতে ধরে ফেলে। গোয়াল চাতরে শরিফুলের বাড়িতে ফরিদপুর থেকে বেড়াতে আসা এক বন্ধুকে অপহরন করে লক্ষাধিক টাকা মুক্তিপন দাবি করে। অপহরনে তার পরিবার কলারোয়া থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে উদ্ধার করে।
জাহানারা এন্টারপ্রাইজের মালিক আসানুরকে বিজিবি’র কাছে ৫০বস্তা সারসহ ধরিয়ে দেয়।
এছাড়া বিভিন্ন অপরাধ মূলক কর্মকান্ডে জরিত থাকার কথা এলাকা বাসির মুখে মুখে শোনা যাচ্ছে।
মিলনকে বাঁচাতে ইউপি সদস্য শফি বিভিন্ন মহলে তদবির চালাচ্ছে বলে জানা গেছে।
এদিকে ধর্ষনের অভিযোগে চৌকিদার মিলনকে থানা পুলিশ আটক করে।
এই ব্যাপারে কলারোয়া থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।