মেইন ম্যেনু

কল করলেই মিলবে সবধরনের স্বাস্থ্যসেবা

এখন থেকে দিনরাত ২৪ ঘণ্টা এক বাষট্টি তেষট্টি (১৬২৬৩) নম্বরে কল করে চিকিৎসকদের পরামর্শসহ সবধরনের স্বাস্থ্যসেবা পাওয়া যাবে। আজ রবিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে হেলথ কল সেন্টার বা স্বাস্থ্য হেলপ-লাইন সেবা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, এই নম্বরে কল করলে দেশের যেকোনো স্থানের রোগীদের প্রয়োজনে নিকটবর্তী সরকারি-বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্স ডাকতেও সহায়তা করবে। জানা যাবে স্বাস্থ্য বিষয়ক যেকোনো তথ্য। একই সাথে সরকারি-বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা অথবা হাসপাতাল/ক্লিনিক সংক্রান্ত অভিযোগ ও পরামর্শ জানানো যাবে। প্রাপ্ত অভিযোগ বা পরামর্শগুলোর ব্যাপারে মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা নেবে।

যুক্তরাজ্য সরকারের ইউকেএইডের অর্থায়নে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এমআইএস বিভাগ সেবাটি চালু করেছে। সেবাটি যেন নিজের আয়ে নিজেই চলতে পারে পরবর্তী সময়ে সে উদ্যোগ নেয়া হবে। ঢাকার একটি তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান সিনেসিস আইটি লিমিটেড সেবাটি পরিচালনার দায়িত্ব পেয়েছে।

স্বাস্থ্যসচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী, জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মো. নূরুল হক, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ওয়াহি হাসেন প্রমুখ বক্তব্য দেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, স্বাস্থ্যসেবা মানুষের হাতের মুঠোয় পৌঁছে দেয়ার প্রচেষ্টায় প্রধানমন্ত্রীর আরও একটি যুগান্তকারী উদ্যোগ এই সরকারি কল সেন্টারটি। স্বাস্থ্যসেবা মানুষের ঘরের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য প্রতিষ্ঠা করেছেন ১৩ হাজারেরও বেশি কমিউনিটি ক্লিনিক।

তিনি বলেন, এখন এই কল সেন্টারের মাধ্যমে মানুষ জরুরি বা যেকোনো স্বাস্থ্য সমস্যায় যেকোনো স্থান থেকেই সহজে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারবেন। ঘরের বাতায়ন বা জানালা দিয়ে এই স্বাস্থ্যসেবা সবার ঘরের ভেতরে পৌঁছে যাবে ফোনের মাধ্যমে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য বাতায়নের মাধ্যমে আমরা নানা ধরনের স্বাস্থ্যসেবা দেব। এর ফলে অতিদরিদ্র মানুষ সরাসরি চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে পরামর্শ নিতে পারবে। তবে কেউ যদি সরকারি/বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা অথবা হাসপাতাল/ক্লিনিক সংক্রান্ত অভিযোগ ও পরামর্শ দেন, আমরা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে প্রাপ্ত অভিযোগ এবং পরামর্শগুলোর ব্যাপারে অবশ্যই ব্যবস্থা নেবো।