মেইন ম্যেনু

কাঁদায় ফেলে দাদাকে খুন করলো নাতি

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধ দাদা রবিউল ইসলামকে (৬৫) কাঁদার মধ্যে ফেলে হত্যা করলো স্কুল পড়ুয়া নাতি হাবিব (১২)। নিহত বৃদ্ধের নাম রবিউল ইসলাম ওই গ্রামের মৃত আনিসুর রহমানের ছেলে।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে গোদাগাড়ী উপজেলার পাকড়ি ইউনিয়নের মালকামলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার পর সপরিবারের পালিয়ে গেছে নাতিকে পালিয়ে গেছে তার বাবা মা।

ঘাতক নাতির নাম হাবিব সে মালকামলা গ্রামের আবদুল মান্নানের ছেলে ও স্থানীয় এক স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র। আবদুল মান্নান নিহত রবিউল ইসলামের ভাতিজা।

গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম আবু ফরহাদ জানান, রবিউল ইসলাম ও তার ভাতিজা আবদুল মান্নানের বাড়ি পাশাপাশি। দুই বাড়ির মধ্য দিয়ে একটি কাঁচা রাস্তা আছে। শনিবার বেলা ১১টার দিকে রাস্তাটি দিয়ে হাবিব মাঠে গরু নিয়ে যাচ্ছিল।

তখন ওই রাস্তা দিয়ে গরু না নিয়ে যাওয়ার জন্য নাতিকে নিষেধ করেন রবিউল ইসলাম। এনিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে হাবিব তার দাদা রবিউলকে মারপিট করে কাদার মধ্যে ফেলে দেয়। এসময় বৃদ্ধ রবিউল ঘটনাস্থলেই মারা যান।

ওসি আরো জানান, ঘটনার পর হাবিবসহ তার পরিবারের সদস্যরা বাড়িতে তালা দিয়ে পালিয়ে গেছে। এ কারণে কাউকে আটক করা যায়নি। বিকেলে রবিউল ইসলামের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়েরেরও প্রস্তুতি চলছে।