মেইন ম্যেনু

‘কাজী অফিসে মাহিকে বিয়ে করি, প্রমাণ আছে’

সময়ের আলোচিত নায়িকা মাহিয়া মাহির কথিত স্বামী শাহরিয়ার শাওন জানিয়েছেন, ২০১৫ সালে তার সঙ্গে মাহির বিয়ে হয়েছে। রাজধানীর বাড্ডার একটি কাজী অফিসে গিয়ে তারা বিয়ে করেন। বিয়ের তথ্য-প্রমাণ তার কাছে আছে।

শাওনকে সোমবার দুই দিনের রিমান্ডে পেয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে এসব তথ্য বেরিয়ে আসে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ সূত্র।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডিবির এক কর্মকর্তা জানান, বাড্ডার বাসা থেকে শাওনের কম্পিউটার জব্দ করা হয়েছে। শাওনের কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক থেকে মাহি ও শাওনের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও ফুটেজ জব্দ করা হয়েছে। শাওন স্বীকার করেছেন যে তিনিই মাহির সঙ্গে তার অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি ফেসবুকে আপলোড করেছেন। মাহির অনুমতি নিয়েই তিনি এসব ছবি আপলোড করেন।

গত শনিবার রাতে চিত্র নায়িকা মাহি উত্তরা পশ্চিম থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় অভিযোগ করা হয়, শাহরিয়ার শাওন নামের এক যুবক ফেসবুকে তার সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি আপলোড করেছে। অনুমতি না নিয়ে এসব ছবি প্রচার করায় তার সম্মান ক্ষুণ্ণ হয়েছে।

ডিবির জিজ্ঞাসাবাদে শাওন দাবি করেছেন কলেজ জীবনের শুরু থেকেই মাহীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ সম্পর্ক গড়ে উঠে তার। বিয়ের আগে থেকেই তাদের সম্পর্ক ছিল স্বামী-স্ত্রীর মতোই। এক সঙ্গে বিভিন্ন স্থানে সময় কাটিয়েছেন তারা।

গত ২২ মে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার কদমতলী এলাকার ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপুর সঙ্গে মাহির বিয়ে হয়। এরপর থেকে শাওন ক্ষুব্ধ হন। তিনি মাহিকে স্ত্রী দাবি করে তার সঙ্গে তোলা অন্তরঙ্গ ছবি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। এই অভিযোগে মাহির দায়ের করা মামলার ভিত্তিতে শাওনকে গ্রেপ্তার করে দুই দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। শাওনের দেয়া তথ্য যাচাই করে দেখছে পুলিশ।