মেইন ম্যেনু

কাদের মোল্লার কবরে ‘শহীদ’ লেখা যাবে না

যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃতুদণ্ড কার্যকর হওয়া জামায়াতের নেতা কাদের মোল্লাসহ অন্য যেকোন যুদ্ধাপরাধীর কবরে ‘শহীদ’ লেখা থাকলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবন্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা বাপ্পীর প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মন্ত্রী বলেন, যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃতুদণ্ডপ্রাপ্ত কুখ্যাত আসামি কাদের মোল্লার মৃতুদণ্ড কার্যকর হওয়ার পর তার কবরের নামফলকে ‘শহীদ’ শব্দটি লেখার বিষয়টি সম্পর্কে মন্ত্রণালয় অবগত নয় তবে যদি তার কবরে এরকম কিছু লেখা হয় তাহলে আমরা কঠোর ব্যবস্থা নিব।

মন্ত্রী আরোও বলেন, আপনার যদি কেউ সুনির্দিষ্ট ভাবে লিখিত অভিযোগ দিতে পারেন তাহলে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এ ব্যাপারে আমরা সবার সহযোগিতা কামনা করছি।

তিনি বলেন, পাকিস্তানি হানাদার ও তাদের এদেশীয় সহযোগী রাজাকার, আলবদর, আল-সামস বাহিনী মানব ইতিহাসের বর্বরতম গণহত্যা সংগঠিত করে বাংলাদেশকে পরিণত করেছিল বধ্যবূমিতে। বাঙালি জাতি পাকিস্তানি বাহিনীর এরূপ ঘৃণ্য বর্বরতাকে কখনো আমরা ভুলবে না।

উল্লেখ্য, গত ১১ ডিসেম্বর ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর করার পর ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার ভাষানচর ইউনিয়নের আমিরাবাদে গ্রামের বাড়িতে মরদেহ দাফন করা হয়। সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা বাপ্পি বিভিন্ন গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে অভিযোগ করেন, কাদের মোল্লার কবরের নামফলকে ‘শহীদ’ শব্দটি লেখা হয়েছে।এর পেরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।