মেইন ম্যেনু

কান পাকে কেন? লক্ষণ কী?

কান পাকার সমস্যা অনেকের ক্ষেত্রেই দেখা যায়। বিভিন্ন কারণে কান পাকে।

প্রশ্ন : কানা পাকা রোগটি কেন হয়? এই রোগ বলতে আমরা কী বুঝি?

উত্তর : কান পাকা রোগ আমাদের দেশে বাচ্চাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি হয়। এটা খুবই প্রচলিত একটি রোগ। এর প্রধান কারণ হলো বারবার ঠান্ডা, সর্দি, ইনফ্লুয়েঞ্জা, জ্বর। এগুলো ভাইরাসের মাধ্যমে হয়। আমাদের গলার সঙ্গে কানের একটি টিউব দিয়ে যোগাযোগ আছে। একে ইউসটেশন টিউব বলে। ভাইরাসগুলো ইউসটেশন টিউব দিয়ে গলার মধ্য দিয়ে সহজেই কানের মধ্যে চলে যায়। কানের মধ্যে গিয়ে ভাইরাস সংক্রমিত হয়ে কানের পর্দা ফুটো করে ফেলে। এর ফলে কান দিয়ে প্রায়ই পুঁজ পড়তে থাকে। এতে কানে কম শোনার সমস্যা হয়। এগুলো হলো প্রধান কারণ। এ ছাড়া ময়লা কোনো কিছু দিয়ে কান পরিষ্কার করা, যাদের কান খোঁচানোর অভ্যাস রয়েছে, ময়লা পানিতে ডুব দিয়ে গোসল করে, তাদের এগুলো হওয়ার আশঙ্কা বেশি থাকে।

প্রশ্ন : তাহলে লক্ষণগুলো ঠিক কীভাবে প্রকাশ পায়? আপনি এরই মধ্যে বলেছেন, পানি বা পুঁজ পড়তে পারে। আর কোন কোন লক্ষণ রয়েছে, যাতে করে বোঝা যাবে কান পাকা রোগ হয়েছে?

উত্তর :এ ছাড়া কানে ব্যথা হয়। মাথাব্যথা হয়। অনেক সময় বমিও হতে পারে। আর কান দিয়ে তো বারবার পুঁজ পড়ে। অনেক সময় দুর্গন্ধযুক্ত পুঁজ পড়তে পারে। কান দিয়ে রক্তও পড়তে পারে। রোগী কানে কম শুনবে।

প্রশ্ন : বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে ঠিক কখন যাওয়া উচিত?

উত্তর : যখনই একটি বাচ্চার কান দিয়ে পুঁজ পড়বে অথবা কানে ব্যথা হবে, কান বন্ধ হয়ে যাবে, তখন চিকিৎসকের কাছে যাবে। এটি বড়দেরও হতে পারে। তবে কান পাকা রোগটি বাচ্চাদেরই সবচেয়ে বেশি হয়। সে জন্য যখনই কান ব্যথা করবে, কান দিয়ে পুঁজ পড়বে, মাথাব্যথা হবে, জ্বর হবে, দেরি না করে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। এনটিভি



(পরের সংবাদ) »