মেইন ম্যেনু

কারা বেশি পর্ন সিনেমা দেখেন, নারী নাকি পুরুষ?

নারী নাকি পুরুষ, কারা বেশি পর্ন সিনেমা দেখেন? এ নিয়ে গুটিকয়েক গবেষণা হয়েছে। তবে নতুন এক গবেষণায় বলা হয়েছে, বিয়ের পর নারীরা এ-কাজে এগিয়ে যান। তখন পুরুষরা পর্ন দেখার অভ্যাস অনেক কমিয়ে আনেন।

গবেষণায় বিশেষজ্ঞরা শতাধিক বিবাহিত নারী-পুরুষের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেন। তারা দেখেন, বিয়ের আগে ও পরে কিভাবে যৌনতার প্রতি নারী-পুরুষের আগ্রহ বদলায়। দেখা গেছে, অংশগ্রহণকারী নারীদের ৯ শতাংশ বিয়ের আগে পর্ন সিনমো দেখতেন। কিন্তু বিয়ের পর তাদের ২৮ শতাংশের পর্ন দেখার অভ্যাস গড়ে ওঠে।

আর পুরুষদের ২৩ শতাংশ বিয়ের আগে পর্ন দেখতেন। অথচ বিয়ের পর এ সংখ্যা ১৪ শতাংশে নেমে আসে। সেক্সোলজিস জার্নালে প্রকাশিত এ প্রতিবেদনে বলা হয়, বিয়ের পর পর্ন সিনেমা দেখার প্রবণতা নারীদের মধ্যে বৃদ্ধি পায়। আর পুরুষদের মধ্যে কমে আসে। আবার পর্ন দেখার বিষয়টি যৌন আকাঙ্ক্ষার প্রকাশ ঘটায়।

অর্থাৎ, বিয়ের পর নারীরা যৌনজীবনে আগ্রহী হয়ে ওঠেন এবং সন্তানধারণের প্রস্তুতি নেন। কিন্তু ছেলেরা সামাজিকভাবে প্রতিষ্ঠার দিকে নজর দেন। আরেক দৃষ্টিকোণ থেকে বলা যায়, বিয়ের পর নারীদের আর পর্ন দেখার ক্ষেত্রে মানসিক ও নৈতিক বাধা থাকে না। এ সময় অন্যদের কাছে ধরা পড়ার ভয় থাকে না।

কিন্তু বিয়ের আগে ছেলের এ ধরনের সমস্যা থাকে না। কিন্তু বিয়ের আগে মেয়েদের ক্ষেত্রে তা বেশ লজ্জাজনক হয়ে ওঠে। আবার এভাবে চিন্তা করা হয়েছে যে, পর্ন সিনেমা দেখার এ-প্রবণতা বিয়ের ওপর নির্ভর করে নয়, বরং বয়সের পরিবর্তনে দেখা দেয়।

বিয়ের পর নারী-পুরুষের যৌন চাহিদার বিষয়টিও বিশ্লেষণ করা হয়েছে। দেখা গেছে, ১৩ শতাংশ পুরুষ ও ১২ শতাংশ নারী স্বাভাবিক উপায়ের যৌনকর্মকেই বেছে নেন। এ ছাড়া ৫ দশমিক ৯ শতাংশ পুরুষ ও ৬ দশমিক ৯ শতাংশ নারী যৌনতৃপ্তি পেতে কল্পনার আশ্রয় নেন।