মেইন ম্যেনু

কালীগঞ্জে শিক্ষকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ

এসএম হাবিব, কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : কালীগঞ্জ মাহাতাব উদ্দিন ডিগ্রি কলেজে চাকুরী যাওয়ার ভয় দেখিয়ে এক শিক্ষক আরেক শিক্ষকের কাছ থেকে ৮০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। তবে ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর আবার তা ফেরতও দিয়েছেন।

কলেজের অনার্স (বাংলা বিভাগের) প্রভাষক দীপক কুমার অধিকারীর কাছ থেকে একই কলেজের সহকারী অধ্যাপক (যুক্তিবিদ্যা) আশরাফ উদ্দিন নামে এক শিক্ষক এই অনৈতিক ঘটনাটি ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ। সহকারী অধ্যাপক আশরাফ উদ্দিনের এসব অবৈধ কাজে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ সহযোগিতা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

কলেজের প্রভাষক দীপক কুমার অধিকারীর অভিযোগ, চিকিৎসার জন্য ভারতে যেতে কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছে ছুটির আবেদন করলেও তাকে ছুটি দেওয়া হয়নি। পরে তার শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হলে ২০১৫ সালের নভেম্বর মাসে তিনি চিকিৎসা নিতে ভারতে যান।

সেখান থেকে ফোনে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। চিকিৎসা নিয়ে ফিরে আসার পর সহকারী অধ্যাপক (যুক্তিবিদ্যা) আশরাফ উদ্দিনের সহযোগিতায় কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ প্রভাষক দীপকের হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করা থেকে বিরত রাখেন এবং বেতনও বন্ধ করে রাখেন। এছাড়া কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদের সহযোগিতায় সহকারী অধ্যাপক আশরাফ প্রভাষক দীপক কুমার অধিকারীর ‘চাকরির সমস্যা হবে’ বলে ভয়-ভীতি দেখিয়ে চার লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। প্রভাষক দীপক চাকরি বাঁচাতে একটি এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে দুই দফায় ৮০ হাজার টাকা প্রদান করেন। চলতি বছরের ২৪ জুলাই ৫০ হাজার টাকা ও একই মাসের ২৮ তারিখে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ ও সহকারী অধ্যাপক আশরাফ উদ্দিনের হাতে নগদ ৩০ হাজার টাকা তুলে দেন।

এদিকে, চাঁদাবাজির ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর সাধারণ শিক্ষক-কর্মচারীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

তবে কলেজের সহকারী অধ্যাপক আশরাফ উদ্দিন এই ঘটনা পুরো অস্বীকার করেছেন।

তিনি বলেন, ‘দূর পাগল! কী কথা বলো! এটা সম্পূর্ণ ষড়যন্ত্র। আমি দীপকের কাছ থেকে ৮০ হাজার টাকা ধার নিয়েছিলাম। সেটা ফেরত দিয়েছি। প্রভাষক দীপকের যাতে চাকরীগত কোনো সমস্যা না হয় সেই জন্য আমি তাকে সাহায্য করতে গিয়েছিলাম। এখন উল্টো আমাকে দোষ দেওয়া হচ্ছে। এটা দুঃখজনক।’

কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ বলেন, ‘প্রভাষক দীপককুমার অধিকারীর ছুটি-ছাটার ব্যাপারে একটা বিষয় আছে। তবে টাকা-পয়সার ব্যাপারে কিছুই জানি না।’