মেইন ম্যেনু

কাশ্মীরে সেনাঘাঁটিতে হামলায় ১৭ সেনা নিহত

ভারতের উত্তরাঞ্চলে জম্মু ও কাশ্মীরের উরি শহরের একটা সেনাঘাঁটিতে সন্ত্রাসী হামলায় ১৭ সেনা নিহত হয়েছেন। নিহত হয়েছেন ৪ জঙ্গিও।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, রোববার ভোরের দিকে হামলা চালানো হয়।

বাংলাদেশ সময় বেলা ১১টার দিকে টাইমস অব ইন্ডিয়া, এনডিটিভি ও জি নিউজ জানায় সন্ত্রাসীদের সঙ্গে সেনাদের গোলাগুলি চলছে। তখন তারা কেবল চার সন্ত্রাসীর নিহত হওয়ার খবর জানিয়েছিল।

তবে এর কিছুক্ষণ পরই ১৭ সেনাসদস্য নিহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়। ছয় ঘণ্টার বন্দুকযুদ্ধে বেশ কয়েকজন সেনা আহতও হয়েছেন। তাদের হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

গত কয়েকবছরে ভারতীয় সেনাবাহিনীর উপর এটিই সবচেয়ে বড় হামলার ঘটনা।

উরির যে ঘাঁটিতে যে হামলা চালানো হয়েছে সেটির অবস্থান রাজধানী শ্রীনগর থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে। বর্তমানে ঘাঁটিতে অভিযান চলছে।

সন্দেহ করা হচ্ছে, হামলকারীরা ‘ফিদায়েন’ (ইসরায়েলবিরোধী আরব যোদ্ধা) অথবা আত্মঘাতী দলের সদস্য।

শ্রীনগর-মুজাফফরবাদ মহাসড়কে অবস্থিত ঘাঁটি থেকে ধোঁয়া উড়তে দেখা গেছে। সেখান থেকে বিস্ফোরণের শব্দও পাওয়া যাচ্ছে।

এদিকে হামলার পর দুপুরে বৈঠক ডেকেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। এক টুইটে তিনি জানিয়েছেন, আগামীকাল তার যে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র সফর শুরু করার কথা ছিল তা বাতিল করা হয়েছে।

এরআগে জানুয়ারিতে ভারতীয় বিমানবাহিনীর পাঠানকোট ঘাঁটিতে সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়েছিল। ওই হামলার পর তিনদিন ধরে অভিযান চলে। এতে সাতে সেনাসদস্য নিহত হন।

সন্ত্রাসীরা গত সন্ধ্যায় উরি শহরে প্রবেশ করে বলে এনডিটিভিতে বলা হয়েছে। ভারতীয় সরকারের উচ্চপদস্থ একটি সূত্র বলছে, পুরো ঘটনা জম্মু এবং কাশ্মীরে অস্থিতিশীলতা ছড়িয়ে দেওয়ার কৌশল পাকিস্তানের।

গেল ৮ জুলাই বুরহান ওয়ানি নিহত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত কাশ্মীরজুড়ে চলমান অস্থিতিশীলতায় ৮০ জনের বেশি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন হাজারের বেশি।



« (পূর্বের সংবাদ)