মেইন ম্যেনু

কিশোরগঞ্জে নির্বাচন আচরণ বিধি মানছে না সরকার দলীয় প্রার্থীরা

খাদেমুল মোরসালিন শাকীর, কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি॥ কিশোরগঞ্জ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে আগামী ৭মে চতুর্থ দফায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে ঘিরে গোটা উপজেলার মানুষের মাঝে নির্বাচনী প্রান চাঞ্চল্যতা বেড়ে গেছে। ঘরে বাহিরে শুধু নির্বাচনী আলাপ জমে উঠেছে। প্রতিটি বাড়ীতে বাড়ীতে গিয়ে ভোটারদের মন জয় করতে নানান প্রতিশ্র“তি দিচ্ছে প্রার্থীরা। সাটানো হয়েছে ইউনিয়নের প্রধান সড়কের উপরে রশি দিয়ে বিভিন্ন প্রার্থীর পোষ্টার। চা দোকানগুলোতে শুরু হয়েছে গত মাসের তুলনায় দ্বিগুন বেচা কেনা। রাত ২টা পর্যন্ত গ্রামের দোকান গুলোর সামনে সাধারণ মানুষ বসে সময় কাটাচ্ছে আর পছন্দের প্রার্থীকে জয়ী করতে চলতে শলা পরামর্শ। কিন্তু সরকার দলীয় প্রার্থীরা নির্বাচন আচরণ বিধিকে উপেক্ষা করে মানুষের ঘরের বেড়াতে ও পাকা বাড়ীর দেয়ালে পোষ্টার,প্রধান প্রধান সড়কের উপরে নৌকা প্রতীক দিয়ে গেট নির্মান করছে। সন্ধ্যায় প্রতিটি ইউনিয়নের বাজার গুলোতে প্রায় ৪/৫শত লোক নিয়ে বিশাল মিছিল বের করা হয়। রাতে নৌকা প্রতীকে আলোক স্বজ্জা দিয়ে আলোকিত করা হয়। নির্বাচনী প্রচারণায় ৪০/৫০টি করে মোটর সাইকেল নিয়ে চলে নির্বাচনী প্রচারণা। তার পরেও উপজেলা নির্বাচন অফিসার’র পক্ষ থেকে নেয়া হয়না কোন ব্যবস্থা। দুপুর ২টা থেকে রাত ৮পর্যন্ত মাইকিং করার নিয়ম থাকলেও সরকার দলীয় প্রার্থীরা রাত ৯টা পর্যন্ত মাইকিং করছেন। উপজেলা নির্বাচন অফিসার নিরুপায় হয়ে নির্বাচন কমিশনারের গায়ে দোষ চাপাচ্ছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ শোয়েব সিদ্দিকীর সাথে কথা হলে তিনি জানান,রাত ৯টা পর্যন্ত মাইকিং চললে আচরণ বিধির দরকার কি? প্রয়োজনে নির্বাচন কমিশনে প্রস্তাব পাঠাব। তবে তিনি বলেন,খুব শিঘ্রই ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে আচরণ আচরণ বিধি লংঘন কারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।