মেইন ম্যেনু

কিশোরদের তুলে নিয়ে বিয়ে করানো হচ্ছে, তাও বাংলাদেশে (ভিডিও)

বাংলাদেশের প্রতিটি জেলায় প্রতিনিয়ত অহরহ বাল্য বিয়ে হচ্ছে। সব সময়ই আমরা জেনে এসেছি, অপ্রাপ্ত বয়স্ক তরুণীদের জোর করে বিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু ভোলার লালমোহনে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র।

ভোলার লালমোহন উপজেলায় উঠতি বয়সি কিশোরদের জোর করে ধরে নিয়ে অপ্রাপ্ত বয়স্ক তরুণীদের সঙ্গে বিয়ে দিয়ে দিচ্ছে ‘কল্লাকাটা বাহিনী’। এই বিয়ে দেয়ার কারণে পাত্রী পক্ষের কাছ থেকে ৫০০-২০,০০০ হাজার টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নিচ্ছে ‘কল্লাকাটা বাহীনি’র সদস্যরা।

এই বাহিনীর হাত থেকে বাঁচতে গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে অনেক কিশোর। এই বাহিনীতে রয়েছে বেশ কয়েকজন সদস্য। এরা বিভিন্ন এলাকার উঠতি বয়সী তরুণদের খোঁজ-খবর রাখে। পরে সুযোগ বুঝে জোর করে তুলে নিয়ে বিয়ে পড়িয়ে দেয়া হয় তাদের।

আর এসব হচ্ছে এলাকার চেয়ারম্যানের ছত্র ছায়ায়। এ কারণে অনেক বাবা-মা তাদের ছেলেদের ভবিষ্যত নিয়ে রয়েছে দু:শ্চিন্তায়। কল্লাকাটা বাহিনীর অধিকাংশ সদস্য চেয়ারম্যানের আত্মীয়।

সেভ দ্য চিলড্রেনের পরিসংখানে দেখা গেছে, বাংলাদেশের গ্রামে শতকরা ৬৬ ভাগ মেয়ের বিয়ে হচ্ছে ১৮ বছরের কম বয়সে।

প্লান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ বলছে, গ্রামে ১৮ বছরের নিচে শতকার ৭১ ভাগ মেয়ের বিয়ে হচ্ছে। আর শহরে ৫৪ ভাগ।

ভোলার লালমোহন উপজেলায় এ ধরণের কর্মকান্ড ঘটলেও এ বিষয়ে কিছুই জানেন না পুশিল প্রশাসন ও জেলা প্রশাসক। তারা জানিয়েছে, এ বিষটি তাদের জানা নেই। তবে এ ধরণের কোন ঘটনা ঘটে থাকলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন তারা। তবে এ ঘটনার মূল নায়কও বিষটি এড়িয়ে গেছেন সু-কৌশলে।

ওই কল্লাকাটা বিয়ের গল্প, হয়রানি হওয়া কিশোরদের মুখে শুনতে ও পুরো বিষয়টি নিজ চোখে।

ভিডিওতে দেখতে এখানে ক্লিক করুন…