মেইন ম্যেনু

কুকুরের সঙ্গে যৌনমিলন করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ল নরেন!

স্ত্রী, পুত্র, কন্যার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে নদিয়ার তাহেরপুরের বাসিন্দা নরেন চক্রবর্তীকে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, রাস্তার কুকুরকে বাড়িতে নিয়ে এসে নিয়মিত যৌনতায় লিপ্ত হতেন তিনি।

বিকৃতমনস্ক এক ব্যক্তির কুরুচিকর কাজের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ালো তারই পরিবার। রাস্তা থেকে খাবারের লোভ দেখিয়ে বাড়িতে ডেকে নিয়ে এসে কুকুরের সঙ্গে যৌন সঙ্গমের অভিযোগে পুলিশের দ্বারস্থ হলেন স্ত্রী, পুত্র ও কন্যা। নদিয়ার তাহেরপুর থানার কালীনারায়নপুর এলাকার বাসিন্দা নরেন চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আপাতত তিনি জেল হেফাজতে।

পেশায় পুরোহিত নরেন চক্রবর্তী কালীনারায়নপুরের চক-কৃষ্ণপুর এলাকার বাসিন্দা। পরিবারের অভিযোগ, বাড়িতে কুকুরের সঙ্গে যৌনতার মতো কুরুচিকর কাজ মেনে নিতে পারেননি তাঁরা। তাঁদের বক্তব্য, নরেনবাবু মাঝেমধ্যেই কুকুরদের খাবার দিয়ে নিজের বাড়িতে নিয়ে আসতেন। এর পরে যৌন নির্যাতন চালাতেন, সঙ্গমে লিপ্ত হতেন। প্রতিবাদ করলে তিনি মারধোর করতেন। প্রথমে প্রতিবেশীদের কাছে বিষয়টা জানান নরেনবাবুর স্ত্রী। তাঁরা শুরুতে বিশ্বাসই করতে চাননি। সোমবার সন্ধ্যায় নরেনবাবুকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন প্রতিবেশীরা। নরেন চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে ৩৭৭ ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়।