মেইন ম্যেনু

কুনিও হত্যার মূলহোতা শনাক্ত

জাপানি নাগরিক হোশি কুনিও হত্যার মূলহোতারা শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি) এ কে এম শহীদুল হক বিপিএম পিপিএম।

তিনি বলেন, ‘জাপানি নাগরিক হত্যার তদন্ত শেষ পর্যায়ে রয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত মূলহোতা শনাক্ত হয়েছে। এখন পুরো তদন্ত শেষ হলেই চার্জশিট দেয়া হবে।’

সোমবার বিকেলে রংপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে বার্ষিক পুলিশ সমাবেশ ও ক্রীড়া অনুষ্ঠানে কুনিও হত্যার তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

এ কে এম শহীদুল হক বিপিএম পিপিএম বলেন, ‘রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ গঠন করতে যাবতীয় প্রক্রিয়া চূড়ান্ত। বিষয়টি আইনগত প্রক্রিয়ায় এগুচ্ছে। এ সংক্রান্ত আইন তৈরি করে সংসদে দেয়া হয়েছে। আইনটি সংসদে পাশ হলেই রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ গঠন করা হবে।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ উদ্বোধন করবেন বলেও জানান তিনি।

আইজিপি আরো বলেন, ‘আমাদের এই দেশ সকলের। এই দেশের সকল ভালো কিছুতে আমাদের সকলের অংশগ্রহণ থাকতে হবে। তবেই দেশ উন্নত হবে। তাই আসুন আমরা সবাই মিলে নিরাপদ ও শান্তির বাংলাদেশ গড়ি।’

বার্ষিক পুলিশ সমাবেশ ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন জেলায় বসবাসকারী সুশীল সমাজের সাথে মিলন মেলায় পরিণত হয়। এই অনুষ্ঠানে পুলিশের সাথে জনগণের মেলবন্ধন তৈরি হয়। আয়োজনে সকল পেশাজীবীর অংশগ্রহণে মুগ্ধ পুলিশ প্রধান।
বার্ষিক পুলিশ সমাবেশ ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথি হিসেবে এ কে এম শহীদুল হক বিপিএম পিপিএম পুরস্কার বিরতণ করেন।

অনুষ্ঠানে রংপুর পুলিশ সুপার আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুনাক (পুলিশ নারী কল্যাণ) সভানেত্রী শামসুন্নাহার রহমান। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন- পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি হুমায়ুন কবীর, রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু, জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার, জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক তুষারকান্তি মণ্ডল, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিউর রহমান সাফি, কমিউনিটি পুলিশিং বিভাগীয় কমিটির সদস্য সচিব সুশান্ত ভৌমিক প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. জাকির হোসেন, সনিক প্রাইম গ্রুপের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আক্কাস আলী সরকারসহ বিভাগের অন্যান্য জেলার পুলিশ সুপার, কমিউনিটি পুলিশিং নেতা, সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতাসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকতারা উপস্থিত ছিলেন।