মেইন ম্যেনু

কুমিল্লায় পত্রিকা অফিসে সন্ত্রাসী হামলা : ৪ জন আহত, ৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

মাসুদ আলম কুমিল্লা থেকে :  কুমিল্লার আলোচিত দৈনিক পত্রিকা বাংলার আলোড়ন অফিসে হামলা চালিয়ে দুই সাংবাদিক ও কর্মরত দুই কর্মচারীসহ ৪ জনকে কুপিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত করে আহত করে সন্ত্রাসীরা। হামলাকারীরা তিনটি কম্পিউটার, প্রিন্টার, ওয়াইফাই মেশিন, বিদ্যুতিক পাখা ও লাইট এবং চেয়ার-টেবিলসহ অফিসের যাবতীয় আসবাবপত্র ভাংচুর করে। এছাড়াও ৬টি মোবাইল দুই ল্যাপটপ এবং নগদ ৭০ হাজার টাকাসহ প্রায় ৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি করে।

আহত এক সাংবাদিক ও কর্মচারীরা জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে চকবাজার গর্জনখোলা এলাকার দুদুমিয়ার ছেলে সন্ত্রাসী ফারুক, তোফায়েল, মজিব, একই এলাকার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে নাজমুল, এছাড়া আজিজের পুত্র হৃদয় এবং জিসানসহ প্রায় ২০/২৫ জন সন্ত্রাসী বাংলার আলোড়ন পত্রিকা অফিসে আসে। এসময় তারা জানতে চান পত্রিকার সম্পাদক ও বার্তা সম্পাদক কোথায়? জিজ্ঞাস করে অতর্কিত ভাবে হামলা করে। এতে তিনটি কম্পিউটার, প্রিন্টার, ওয়াইফাই মেশিন, বিদ্যুতিক পাখা ও লাইট এবং চেয়ার-টেবিলসহ অফিসের যাবতীয় আসবাবপত্র ভাংচুর করে সাংবাদিকসহ ৪জনকে কুপিয়ে পিটিয়ে আহত করে। একপর্যায়ে প্রধান সম্পাদকে গালিগালাজ করে অফিসের প্রধান ফটকের গ্লাস ভেঙ্গে চিন্নভিন্ন করে দেয়।

এব্যাপারে দৈনিক বাংলার আলোড়ন পত্রিকার সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জানান, হামলার সময় আমি অফিসে ছিলাম না। হামলাকারীদের সাথে আমার কোন প্রকার পূর্ব বিরোধ নেই। কেন তারা আমার সাংবাদিক, কর্মচারী ও অফিসের আসবাবপত্র ভাংচুর করে লুটপাট চালিয়েছে তা আমি জানি না।

এদিকে পত্রিকা অফিসে হামলার খবর পেয়ে কুমিল্লা র‌্যাব ১১, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রব, অফিস ইনচার্জ সামছুজ্জামান, ডিবি, পিবিআই এবং কুমিল্লা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক ফারুকসহ সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। কুমিল্লা প্রেসক্লাবের এনামুল হক ফারুকজানান, এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনকে আহবান জানান। এমনকি কুমিল্লা জেলা প্রশাসক হাসানুজ্জামান কল্লোল, প্রেসক্লাসের সভাপতি মাসুক আলতাফ চৌধুরী, কুমিল্লা কাগজের সম্পাদক আবুল কাশেম হৃদয়, রূপসী বাংলার সম্পাদক আশিক অমিতাভ, আমাদের কুমিল্লার ভারপাপ্ত সম্পাদক শাহাজাদা এমরানসহ কুমিল্লা প্রেসক্লাবের সকল সদস্য ও সাংবাদিক মহল তার নিন্দা প্রকাশ করেন।

এদিকে বাংলার আলোড়ন পত্রিকার প্রধান বার্তা সম্পাদক হাবিবুর রহমান খান জানান কুমিল্লা সদর আসনের আওয়ামীলীগের এমপি হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের কয়েকটি ছবির ফলক বাংলার আলোড়ন পত্রিকা অফিসে থাকার দায়ে ওই সন্ত্রাসীরা এমপির উপর ক্ষোভ প্রকাশ করে হামলা ও লুটপাট করেছে বলে তিনি জানান।

এ ঘটনায় কুমিল্লা সদর থানায় ১০ জনের নাম উল্লেখ করে বাংলার আলোড়ন পত্রিকার বার্তা সম্পাদক হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।