মেইন ম্যেনু

কুমিল্লা-আগরতলা বিদ্যুৎ সঞ্চালন এপ্রিলে

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী জানিয়েছেন, কুমিল্লা-আগরতলা বিদ্যুৎ সঞ্চালন আগামী মাসেই শুরু হবে।

রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ের প্ল্যানারি হলে শুক্রবার সন্ধ্যায় ‘সপ্তম বাংলাদেশ-ভারত ফ্রেন্ডশিফ ডায়ালগ’ অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী পর্বে মন্ত্রী এ কথা জানান।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের উদ্যোগে দুই দেশের মধ্যে পানি বণ্টন, সংযোগ (কানেক্টিভিটি) এবং নিরাপত্তা- এই তিন বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দু’দিন ব্যাপি অনুষ্ঠানের আজ উদ্বোধন হলো।

অনুষ্ঠানে আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের দিন থেকে বাংলাদেশকে পূর্বনির্ধারিত ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ দেবে ভারত। এ লক্ষ্যে ভারতীয় অংশে বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ভারতীয় অংশের বিদ্যুৎ লাইনে ৬৫টি টাওয়ার রয়েছে। ১৫ কিলোমিটার লাইনে টাওয়ারের নির্মাণ ও ওয়ারিংয়ের কাজ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। আগামী মাসে পরীক্ষামূলক বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবে। এরপর ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে পুরোপুরি বিদ্যুৎ সংযোগ দিবে দেশটি।

বাংলাদেশ-ত্রিপুরা বিদ্যুৎ লাইনের মোট দৈর্ঘ্য ৬৪ কিলোমিটার। এরমধ্যে ভারতীয় অংশে অর্থাৎ ত্রিপুরায় পড়েছে ১৭ কিলোমিটার।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ও ভারত শুধু ভালো বন্ধু এবং প্রতিবেশী নয়। বাংলাদেশ ও ভারত একে অপরের উন্নয়ন অংশীদার। তিনি বিশ্বাস করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ মোদির নেতৃত্ব দক্ষিণ এশিয়ার শান্তি, স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের মাধ্যমে জনসাধারণের জীবন মানের পরিবর্তন আসবে।

তিনি আরো বলেন, দুই দেশের আন্তরিকতার কারণে সীমান্তে এখন শান্তি বিরাজ করছে। বাণিজ্যে তারা শুধু প্রতিবেশী নয়, বন্ধুসুলভ সর্ম্পক স্থাপনে সক্ষম হয়েছেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব, ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের সভাপতি নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের কাতারে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, এফবিসিসিআইয়ের প্রাক্তন সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ প্রমুখ।

আগামীকাল সেমিনারে সমাপনী অনুষ্ঠান একই ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।