মেইন ম্যেনু

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে হলে হলে তল্লাশি, অস্ত্র উদ্ধার

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মোমবাতি জ্বালানোর নামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট সহিংসতার পর হলে হলে তল্লাশি চালিয়ে বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।আইনশঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা প্রতিটি হলে গিয়ে ছাত্রদের বের করে দিয়ে তল্লালি চালায়।তবে সকাল থেকে কোনো অপ্রীতিক ঘটনা ঘটেনি।কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদের জন্য তিনটি এবং ছাত্রীদের জন্য একটি হল রয়েছে।

গভীর রাতে ছাত্রলীগের বিবদমান দুই পক্ষ ক্যাম্পাস ত্যাগ করে। রাতেই ক্যাম্পাসের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে পুলিশ। সকালে র‌্যাবও ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে।বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণার পর ছাত্রদেরকে বেলা ১১টা এবং ছাত্রীদেরকে দুপুর ২টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছে।

সাড়ে পাঁচ হাজার ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে প্রায় এক হাজারের বেশি ছাত্র-ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে থাকে।হঠাৎ বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণার সঙ্গে ছাত্র-ছাত্রীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়ায় বিশেষ করে আবাসিক শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছে।

শোকাবহ আগস্টের প্রথম প্রহরে রাত ১২টার পর বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মোমবাতি জ্বালানোকে কেন্দ্র করে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দু’পক্ষে খালিদ সাইফুল্লাহ নামে ছাত্রলীগের এক নেতা নিহত হয়েছেন। এছাড়া একজন গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছেন আরও ১৫ জন।

এ ঘটনার পর বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

হলের কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, রাতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মোমবাতি জ্বালানো নিয়ে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল হাসান আলিফ ও ছাত্রলীগ নেতা ইলিয়াস হোসেন সবুজের সমর্থকদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এর এক পর্যায়ে দুপক্ষই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে দুইজন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ১৬ জন আহত হন। এদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ খালিদকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

খালিদ বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের ৭ম ব্যাচের ছাত্র। তিনি কাজী নজরুল ইসলাম হল শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন।

আহতদের মধ্যে লোক প্রশাসন বিভাগের ৪র্থ ব্যাচের ছাত্র আতিকুর রহমানের হাতের আঙ্গুল গুলিতে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। আতিকুরসহ আহত কয়েকজনকে কুমিল্লা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর কাজী ওমর সিদ্দিকী রানা জানান, সংঘর্ষের পর সোমবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের জরুরি সভা ডাকা হয়। সভায় অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়। বেলা ১১টার মধ্যে ছাত্রদের এবং দুপুর ২টার মধ্যে ছাত্রীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।