মেইন ম্যেনু

কুড়িগ্রামে বিএসএফের গুলিতে ঝড়ল আরেক বাংলাদেশীর প্রাণ, আহত ১

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের রৌমারী সীমান্তে দুখু মিয়া হত্যার একদিন পর আবার বিএসএফর গুলিতে বাহারুল ইসলাম (৩৪) নামে এক ব্যক্তি’র প্রাণ ঝড়ল। রোববার ভোররাত সাড়ে ৪টার দিকে আন্তর্জাতিক সীমান্তে অবস্থিত পূর্বছাট কড়াইবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এসময় জাকির হোসেন (২৫) নামে তার অপর সঙ্গি আহত হয়। দুজনই সীমান্তে চোরাচালানের সাথে যুক্ত। এ ঘটনার পর সীমান্তে টহল বাড়িয়েছে বিজিবি।

বিজিবির দাঁতভাঙ্গা বিওপির কোম্পানী কমান্ডার আব্দুল আজিজ জানান, রোববার ভোরে উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের পূর্বছাট কড়াইবাড়ি সীমান্তের ১০৫৫ এর ৪ (এস) আন্তর্জাতিক সীমানা পিলারের নিকট বাহারুল ইসলাম নামের পাচারকারী ভারতের গুটালু ক্যাম্পের ৫৭ ব্যাটালিয়ন বিএসএফের জওয়ানরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। গুলিবিদ্ধ বাহারুল দৌড়ে বাংলাদেশের সীমান্তে এসে ঢলে পড়ে। বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয়রা তার পরিবারে খবর দেয়। পরিবারের লোকজন দাঁতভাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পে জানালে, বিজিবি লাশ উদ্ধার করে।

দাতঁভাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সামছুল হক জানান, নিহত বাহারুল ইসলাম ইউনিয়নের পূর্বছাট কড়াইবাড়ি গ্রামের বক্তার হোসেনের পুত্র। তার পিঠে গুলি লেগে বুক দিয়ে বের হয়ে যাওয়ার চিহ্ন রয়েছে। এসময় একই এলাকার ছপিয়াল আলীর পুত্র জাকির হোসেন আহত হয়েছে। তাকে গোপন স্থানে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তিনি দাবি করেন, বিএসএফ সীমান্ত অতিক্রম করে এসে গুলি করে মানুষ হত্যা করে। তারা এ হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।

অপরদিকে রৌমারী দাঁতভাঙ্গা বিওপি কমান্ডার আব্দুল আজিজ জানান, বাহারুল ইসলাম একজন চিহ্নিত চোরাকারবারী সদস্য। চোরাচালানের জন্য সে রোববার ভোর রাতে সীমান্ত অতিক্রম করার সময় বিএসএফ-র গুলিতে নিহত হয়। আহতের বিষয়ে আমাদের জানা নেই। লাশ উদ্ধার করে রৌমারী পুলিশে খবর দেয়া হয়েছে।