মেইন ম্যেনু

‘কেন আত্মহত্যা করছেন না বিনি!’ এরপরে স্বামীকে কীভাবে বাঁচালেন মায়ান্তি?

স্টুয়ার্ট বিনির মতো অতি সাধারণ এক জন ক্রিকেটারকে কীভাবে বিয়ে করলেন মায়ান্তি ল্যাঙ্গার? মায়ান্তি কেন যে এখনও বিচ্ছেদের আবেদন করছেন না, তা তিনিই ভাল বলতে পারবেন।

স্টুয়ার্ট বিনির মতো অতি সাধারণ এক জন ক্রিকেটারকে কীভাবে বিয়ে করলেন মায়ান্তি ল্যাঙ্গার? মায়ান্তি কেন যে এখনও বিচ্ছেদের আবেদন করছেন না, তা তিনিই ভাল বলতে পারবেন। এমন হতশ্রী বোলিংয়ের জন্য তো বিনির মরে যাওয়াই উচিৎ। আত্মহত্যার পথ বেছে নেওয়া উচিৎ। এমনই সব ব্যঙ্গবিদ্রুপ উড়ে এসেছে স্টুয়ার্ট বিনির উদ্দেশে। বিনির পাশাপাশি মায়ান্তিকেও অনেকে তোপ দেগেছেন। তাঁকে বলা হয়েছে লোভী। বলা হয়েছে, টাকার জন্যই মায়ান্তি নাকি বিয়ে করেছেন বিনিকে। ক্রমাগত সমালোচিত হতে থাকা মায়ান্তি অবশেষে জবাব দিয়েছেন নিজস্ব স্টাইলেই।

image (5)

ঘটনা হল, গত শনিবার রাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম টি টোয়েন্টি ম্যাচে প্রচণ্ড মার খেয়েছিলেন বিনি। তাঁর ওভারের প্রথম পাঁচটি বলই উড়ে গিয়েছিল গ্যালারিতে। পাঁচ বলে একটি ওয়াইড-সহ ৩১ রান দেন বিনি। তাঁর ওভারে ওঠে সাকুল্যে ৩২ রান। তার পরেই সোস্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে বিনিকে সমালোচনার শিকার হতে হয়। বিদ্রুপ করা হয় মায়ান্তিকেও। আর বিদ্রুপের জবাবে মায়ান্তি খোলা চিঠি পোস্ট করেন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে। তাতে লেখা— যাঁরা বিদ্রূপ করছেন, আশাকরি, কেউ কখনও আপনার প্রিয়জনের মৃত্যু চাইবেন না অথবা সেই ধরনের ইচ্ছার কথা জানিয়ে বীভৎস সব ছবিও পাঠাবেন না।

বিদ্রূপ করে হলেও আমাকে আত্মহত্যা করতে বলাটা লজ্জাজনক ব্যাপার। যে পরিবারগুলো আত্মহত্যার মতো দুর্ঘটনার শিকার হয়, কষ্ট পায়, তাঁদের কথা একবার ভেবে দেখুন। মজা করতে গিয়ে তাঁদের দুর্দশাকে আপনারা রসিকতায় পরিণত করেছেন।বিবাহ বিচ্ছেদের পরামর্শগুলো বলে দিচ্ছে, আপনারা এখনও সেটির খোঁজ পাননি। আমি ১৮ বছর বয়স থেকে চাকরি করি। আমাকে লোভী বলার আগে নিজে কোনও চাকরি জোগাড় করুন। নিজের ও পরিবারের ভার বহন করার ক্ষমতা অর্জন করুন। আমাদের খোঁচা দিয়ে নিজেদের খুব বড় মনে করছেন নিশ্চয়। না হলে এসব করে লাভ কী? সবার জন্য শুভকামনা রইল।