মেইন ম্যেনু

কেন কমছে না ভূঁড়ি?

খাবারের নিয়ন্ত্রণ বা ব্যায়াম করেও কি পেটের মেদ কমছে না? তাহলে হয়তো অন্য কোনো বিষয় আপনাকে সমস্যায় ফেলছে। ভূঁড়ির এই সমস্যায় যারা ভুগছেন, তারাই জানেন কষ্টটা। টাইম ম্যাগাজিনে প্রকাশিত হয়েছে এই সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন। দেখুন তো নিচের কোনো বিষয় এর মধ্যে রয়েছে কি না।

১. মদ্যপান

মদ্যপান পেটের মেদ না কমার অন্যতম একটি কারণ। মদ্যপান বিপাকে সমস্যা করে। এতে পেটের মেদ ঝরতে অসুবিধা হয়।

২. বুড়ো হচ্ছেন

বয়স বাড়াও কিন্তু পেটের মেদ না কমার আরেকটি কারণ। বিশেষজ্ঞরা বলেন, নারীর মেনোপজ বা দীর্ঘমেয়াদি ঋতুস্রাব বন্ধ হওয়ার পর পেটে মেদ বেশি হয়। হরমোনের তারতম্যকে এর জন্য দায়ী বলে মনে করা হয়।

৩. প্রক্রিয়াজাত খাবার

প্রক্রিয়াজাত খাবার বেশি খেলে পেটের মেদ বাড়ার আশঙ্কা থাকে। যেমন ক্র্যাকার্স, পাউরুটি, চিপস, পরিশোধিত চিনি ইত্যাদি ওজন বাড়ায়।

৪. ব্যায়াম পর্যাপ্ত নয়

ওজন কমানোর জন্য আপনি হয়তো ব্যায়াম করছেন। কিন্তু ঠিক যতটুকু ব্যায়াম আপনার নিয়মিত করা প্রয়োজন সেটি করছেন না। এটিও পেটের মেদ না কমার কারণ হতে পারে। তাই ফিটনেস প্রশিক্ষকের কাছে জেনে নিন কতটুকু ব্যায়াম করা আপনার প্রয়োজন।

৫. মানসিক চাপ

মানসিক চাপ থাকলে পেটের মেদ সহজে কমে না। তাই মানসিক চাপে থাকলে সেটি  কমানোর উপায় বের করুন।

৬. ঘুমাচ্ছেন না

গবেষণায় বলা হয় যে নারীরা পাঁচ ঘণ্টার কম ঘুমান তাদের পেটের মেদ সহজে কমে না। বিশেষজ্ঞরা বলেন, একজন প্রাপ্তবয়স্ক লোকের দৈনিক অন্তত সাত থেকে আট ঘণ্টার ঘুম জরুরি।

৭. অ্যাপল শেইপ

আপনার শরীর হয়তো অ্যাপল শেইপড। অর্থাৎ পৃষ্ঠদেশ থেকে শরীরের মধ্যভাগের ওজন বেশি। এই ধরনের ব্যক্তিদের পেট থেকে মেদ কমাতে একটু কষ্ট হয়।