মেইন ম্যেনু

কেরানীগঞ্জে অ্যাসিডে ঝলসে গেল স্কুলশিক্ষার্থী

রাজধানীর কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন কমলাচর এলাকায় শরিফুল ইসলাম সজীব (১৫) নামের এক স্কুলশিক্ষার্থী অ্যাসিডে ঝলসে গেছে। সজীব স্থানীয় একটি স্কুলের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী বলে জানা গেছে। তার বাবার নাম শাখাওয়াত হোসেন। তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার খুব ভোরের দিকে সজীবকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঢামেক হাসপাতালের ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ পরিদর্শক মোজাম্মেল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ঢামেক বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন পার্থ শঙ্কর পাল জানান, অ্যাসিডে সজীবের শরীরের পাঁচ ভাগ পুড়ে গেছে। গলা, মুখমণ্ডল ও দুই হাতের কিছু অংশ ঝলসে গেছে। তার চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

হাসপাতালে উপস্থিত সজীবের মা মঞ্জু বেগম জানান, রোববার দিবাগত রাত আনুমানিক ২টার দিকে দুজন ছেলে এসে সজীবকে ডেকে ঘর থেকে বের করে। এরপর তাকে কলিসন্ন্যাসী এলাকায় নিয়ে যায়। তিনিও পিছে পিছে যান। এরই মধ্যেই কিছু ‍বুঝে ওঠার আগেই সজীব চিৎকার দিয়ে ওঠে। পরে বুঝতে পারি তার শরীরে অ্যাসিড মেরেছে ওই দুই ছেলে। এরপর তারা পালিয়ে যায়।

কেন এমন হলো জানতে চাইলে তিনি জানান, গত মাসে ওই এলাকায় একটি মেলা হয়েছে। ওই মেলায় কোনো ঘটনার জের ধরে এ রকম ঘটেছে বলে তার ধারণা।

এ বিষয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফেরদাউছ হোসেন জানান, অ্যাসিড মেরে এক ছেলেকে ঝলসে দেওয়া হয়েছে, এমন খবর শুনে হাসপাতালে এক এসআইকে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত শেষে এ বিষয়ে বিস্তারিত বলা যাবে।