মেইন ম্যেনু

‘কেরির ফোনে উদ্বিগ্ন নয় সরকার’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির ফোনে সরকার উদ্বিগ্ন নয় বলে জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, সম্প্রতি ঘটে যাওয়া সকল হত্যাকাণ্ডেরই বিচার হবে। তবে এসব হত্যাকাণ্ডে বিএনপির চক্রান্ত রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন নাসিম।

আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যযালয়ে ১৪ দলের বৈঠক শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগের এই প্রেসিডিয়াম সদস্য। সম্প্রতি হত্যাকাণ্ড প্রতিরোধ ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি স্থিতিশীল রাখতে এ বৈঠকের আয়োজন করে ১৪ দল।

ইউএসএআইডির কর্মকর্তা জুলহাজ মান্নানের খুনিদের গ্রেপ্তারের আহ্বান জানাতে মার্কিন মন্ত্রীর ফোন কল আন্তর্জাতিক ভাবে বাংলাদেশের উপর কোন চাপ সৃষ্টি হচ্ছে কিনা না ? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, ‘যে কেউ ফোন দিতে পারে, এতে চাপের কিছু নেই। তবে আন্তর্জাতিক চক্রান্ত রয়েছে বলে দাবি করেন নাসিম। তবে স্পেসিফিক (নির্ধারিত) কোন দেশের চক্রান্ত রয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমি একজন দায়িত্বশীল হয়ে এই বিষটি সরাসরি বলতে পারি না। এটি আপনারাও জানেন”। তবে দেশে সম্প্রতি এসব হত্যাকাণ্ডে ১৪ দল উদ্বিগ্ন বলেও জানান ক্ষমতাসীন আওয়ামী নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের এই মুখপাত্র।

এদিকে এসব হত্যাকাণ্ডের বিএনপির সংশ্লিষ্টতার ইঙ্গিত দিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘যারা (বিএনপি) পূর্বে নৈরাজ্য করে ব্যর্থ হয়েছে। তারাই এখন গুপ্ত হত্যার পথ বেছে নিয়েছে। এটা সু-গভীর চক্রান্ত’ সরকারকে বিব্রত করতে একই সাথে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধ করতেই এসব হত্যাকাণ্ড ঘটানো হচ্ছে বলেও দাবি করেন নাসিম।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাবেক শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়াসহ ১৪ দলের অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা।

উল্লেখ্য, জুলহাজ মান্নান ও মাহবুব রাব্বী তনয় হত্যাকাণ্ডের বিচারের জন্য গতকাল রাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোন করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি। এ হত্যাকাণ্ড নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন কেরি। প্রায় ১৬ মিনিট ধরে কথা হয় এ দুজনের মধ্যে।