মেইন ম্যেনু

কে এই সালি লিওন, কি তার পরিচয়? না জানলে জেনে নিন

যাকে বলা হয় স্বপ্নকি রানী সানি । আসুন জেনে নিই তার সম্পর্কে কিছু না জানা তথ্য । সানি লিওনের জন্ম-১৯৮১ সালের ১৩ মে । ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডীয়ান পর্নো তারকা যিনি ম্যাক্সিম ম্যাগাজিনের ২০১০ সালে বিশ্বের সেরা ১০ পর্ণো স্টারের একজন হিসেবে নির্বাচিত হন তার কথাই বলছি ।

সানি লিওনের বাবা ছিলেন তিব্বতী আর মা হিমাচল প্রদেশের মেয়ে । ছেলেবেলা থেকেই সানি খুব দুরন্ত । ছোটবেলায় পথে পথে ছেলেদের সঙ্গে খেলাধুলায় মেতে থাকতেন । একটু বড় হয়ে প্রথমে শুরু করে হকি খেলা এবং পরবর্তীতে আইস স্কেটিং । শিখ ধর্মের মানুষ হয়েও তার বাবা- মা ভর্তি করেন ক্যাথলিক স্কুলে । মাত্র তের বছর বয়সে মেয়েকে নিয়ে তারা চলে আসেন আমেরিকার মিশিগানে । পরবর্তীতে ক্যালিফোর্নিয়া চলে যান ।
পেশা হিসাবে একটি জার্মান বেকারিতে কাজের মাধ্যমে শুরু হয়েছিল কর্মজীবন । পরবর্তীতে ট্যাক্স ফার্মেও কাজ করেছেন । অরেঞ্জ কাউন্টিতে নার্স হিসেবে চাকুরি করার সময় এখানেই জন স্টিভেনের সঙ্গে তাকে পরিচয় করিয়ে দেন এক কাসমেট । জন পেন্টহাউস ম্যাগাজিনের একজন ফটোগ্রাফার । জনই তাকে এ পথ দেখান ।

সানি নিজের ডাক নামটি প্রথম নাম হিসাবে ব্যবহার করা শুরু করেন । আর পেন্ট হাউস ম্যাগাজিনের মালিক তার নামের সঙ্গে যুক্ত করেন লিওন । পেন্টহাউস ম্যাগাজিনের জন্য ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান সানি । ২০০১ সালের মার্চ মাসের ইস্যুতে পেন্টহাউস পেট হিসেবে পত্রিকাটির কাভারে ছবিটি ছাপা হয় । অনেকগুলো ম্যাগাজিনের কাভার গার্ল হবার সুযোগ পান তিনি । পাশাপাশি আদ্রিয়ানা সেজ, জেনা জেমসন, আরিয়া জিওভান্নির মতো প্রথম সারির পর্ণো তারকার সঙ্গেও কাজ করার সুযোগ পান । ২০০৩ সাল সানির ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট । তিনি নির্বাচিত হন ‘পেন্টহাউস পেট’।

এ বছরই পর্ণো ছবির অন্যতম সেরা নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভিভিড ইন্টারটেইনমেন্টের সঙ্গে তিন বছরের চুক্তিতে আবদ্ধ হন । তবে চুক্তির শর্ত অনুসারে কেবল লেসবিয়ান চরিত্রেই অভিনয় করতে থাকেন তিনি । সানি অভিনীত প্রথম ছবিটি বের হয় ‘সানি’ নামেই ২০০৫ সালের ডিসেম্বর মাসে । ভিভিড এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারেই বের হয় পরের ছবিটিও । নাম ‘ভার্চুয়াল ভিভিড গার্ল সানি লিওন’।

এভাবে কোনো অভিনেত্রীর নামে ছবি প্রকাশের ঘটনা ভিভিডের ইতিহাসে এটাই প্রথম । এখানে তার সঙ্গে আরও অভিনয় করেন মিকালা মেনডেজ এবং ডেইজি ম্যারি । এই ছবিটি তাকে এনে দেয় ‘এভিএন’ সম্মাননা । ব্রাজিলে রিলিজ হয় ‘সানি ইন ব্রাজিল’ এবং ‘দ্য সানি এক্সপেরিমেন্ট’।

ছবিগুলো ২০০৭ সালে বাজারে রিলিজ করে ভিভিড । ২০০৭ সালের মার্চ মাসে আবারও সানির সঙ্গে চুক্তি করে ভিভিড । চুক্তির আওতায় ছয়টি ছবিতে অভিনয় করেন সানি লিওন । আর এবারই প্রথম কোনো পুরুষ অভিনেতার সঙ্গে কাজ করতে সম্মতি জানান তিনি । সানির বাগদত্তা ম্যাট এরিকসন এই ছবিতে তার কো-আর্টিস্টের ভূমিকায় অভিনয় করেন । পুরুষের সঙ্গে প্রথম যে ছবিটিতে তিনি অভিনয় করেন সানি সেটির নাম ‘সানি লাভস ম্যাট’ ।

ছবিটি তাকে ২০০৯ সালের সেরা নারী অভিনেত্রীর পুরষ্কার এনে দেয় । একসঙ্গে কয়েকটি ছবিতে অভিনয়ের পর সানি উপলব্ধি করেন ম্যাটের সঙ্গে টানা অভিনয় বাজারদর কমিয়ে দিচ্ছে । এবার তিনি অন্য অভিনেতাদের সঙ্গেও অভিনয় করতে শুরু করেন । যাদের মধ্যে রয়েছেন টমি গান, চার্লস ডেরা জেমস ডিন প্রমুখ ।