মেইন ম্যেনু

কোন মুসলমান তার গুনাহের কারনে কি চিরস্থায়ী জাহান্নামী হবে? জেনে নিন তার উত্তর…

প্রশ্নঃ
আসসালামু আলাইকুম।
মাননীয় মুফতীয়ানে কিরামের কাছে আমার জানার বিষয় হলো, কোন মুসলমান কি তার গুনাহের কারনে চিরস্থায়ী জাহান্নামী হবে??
নাকি সে কোন এক সময় তার শাস্তি ভোগ করার পর জান্নাতে ফিরে আসবে?

উত্তরঃ
وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته
بسم الله الرحمن الرحيم

আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন যাকে ইচ্ছে তাকে ইমানের মত এত বড় নেয়ামত দান করেন। আবার যাকে চান তাকে এ নেয়ামত থেকে মাহরুম করেন।
কোন ব্যক্তি ঈমান আনার সাথে সাথে ইন্তেকাল করেন নেক আমল করার সুযোগই না পায়, তাহলে উক্ত ব্যক্তি সত্য দ্বীন গ্রহণ করার কারণে আল্লাহ তাআলার রহমাতে সে জান্নাতী হবে।

আর যদি নেক আমল করার সুযোগ পায়, কিন্তু নেক আমল না করে গোনাহে লিপ্ত হয়, তাহলে উক্ত ব্যক্তি নীতি অনুপাতে শুরুতেই জান্নাতে প্রবেশ করবে না। তবে গোনাহের শাস্তির পর জান্নাতে প্রবেশ করবে। তবে এ শর্তে সে আল্লাহর সাথে কাউকে শরীক করার মত গুনাহগার না হয়।
কেননা, আল্লাহ তায়ালা মুশরিকদের ক্ষমা করবেন না বলে ঘোষনা দিয়েছেন।

আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন–

إِنَّ اللَّهَ لَا يَغْفِرُ أَن يُشْرَكَ بِهِ وَيَغْفِرُ مَا دُونَ ذَٰلِكَ لِمَن يَشَاءُ ۚ وَمَن يُشْرِكْ بِاللَّهِ فَقَدْ ضَلَّ ضَلَالًا بَعِيدًا
অনুবাদ: নিশ্চয় আল্লাহ তাকে ক্ষমা করেন না, যে তাঁর সাথে কাউকে শরীক করে। এছাড়া যাকে ইচ্ছা, ক্ষমা করেন। যে আল্লাহর সাথে শরীক করে সে সুদূর ভ্রান্তিতে পতিত হয়। {সূরা নিসা-১১৬}

কোন ব্যক্তি যদি সারা জীবন গুনাগ করে এবং সে আল্লাহর সাথে কাউকে শরীক না করে তাহলে তার ইমান তাকে এক দিন না হয় জাহান্নাম থেকে মুক্ত করে জান্নাতে নিয়ে যাবে।

রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেনঃ

عن أنس عن النبي صلى الله عليه و سلم قال يخرج من النار من قال لا إله إلا الله وفي قلبه وزن شعيرة من خير ويخرج من النار من قال لا إله إلا الله وفي قلبه وزن برة من خير ويخرج من النار من قال لا إله إلا الله وفي قلبه وزن ذرة من خير
অনুবাদ: হযরত আনাস রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেনঃ যে “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ”বলবে আর তার অন্তরে একটি যব পরিমাণও নেকী থাকবে, তাকে জাহান্নাম থেকে বের করা হবে এবং যে “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ”বলবেআর তার অন্তরে একটি অণু পরিমাণও নেকী থাকবে তাকে জাহান্নাম থেকে বের করা হবে। {সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৪৪, সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-১২৫, মুসান্নাফ ইবনে আবী শাইবা, হাদীস নং-৩০৩৮৫ , সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-১৪৪৩, কানযুল উম্মাল, হাদীস নং-১২৬, মুসনাদে আবী ইয়ালা, হাদীস নং-২৯২৭, মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-১২১৫৩, মাশকিলুল আসার লিততাহাবী, হাদীস নং-৪৮৩৮, সুনানে নাসায়ী কুবরা, হাদীস নং-১১২৪৩}

মেশকাতুল মাছাবীহ-এর ব্যাখ্যাগ্রন্থ মেরক্বাতেও একই কথা আছে।

(قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ – صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ -: (مَنْ مَاتَ وَهُوَ يَعْلَمُ) أَيْ عِلْمًا يَقِينًا سَوَاءٌ قَدَرَ عَلَى الْإِقْرَارِ اللِّسَانِيِّ وَأَقَرَّ، أَوْ لَمْ يَقْدِرْ عَلَيْهِ وَاكْتَفَى بِالْقَلْبِ، أَوْ جَهِلَ وُجُوبَهُ، أَوْ لَمْ يُطَالِبْ بِهِ، أَوْ أَتَى بِهِ، إِذْ لَيْسَ فِيهِ مَا يَنْفِي تَلَفُّظُهُ بِهِ (أَنَّهُ لَا إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ) وَهَذِهِ الْكَلِمَةُ عَلَمٌ لِكَلِمَتَيِ الشَّهَادَةِ، وَلِذَا اقْتَصَرَ عَلَيْهَا (دَخَلَ الْجَنَّةَ) إِمَّا دُخُولًا أَوَّلِيًّا إِنْ لَمْ يَصْدُرْ عَنْهُ ذَنْبٌ بَعْدَ الْإِيمَانِ، أَوْ أَذْنَبَ وَتَابَ، أَوْ عَفَا اللَّهُ عَنْهُ. أَوْ دُخُولًا أُخْرَوِيًّا فَإِنَّ اللَّهَ لَا يُضَيِّعُ أَجْرَ مَنْ أَحْسَنَ عَمَلًا، أَوْ مَعْنَاهُ اسْتَحَقَّ دُخُولَ الْجَنَّةِ. (مرقاة المفاتيح، كتاب الايمان-1/94

সুতরাং,
উল্লিখত কুরআন হাদীস দ্বারা এ কথা বুঝা যায় যে, কোন ব্যক্তি যদি সারা জীবন গুনাগ করে এবং সে আল্লাহর সাথে কাউকে শরীক না করে তাহলে তার ইমান তাকে এক দিন না হয় জাহান্নাম থেকে মুক্ত করে জান্নাতে নিয়ে যাবে। সে চিরস্থায়ী জাহান্নামী হবে না।
والله اعلم بالصواب

শায়েখ মুফতী ফখরুল ইসলাম নিজামপূরী
পরিচালক: ফিকহে হানাফী রিসার্চ সেন্টার চট্টগ্রাম বাংলাদেশ।