মেইন ম্যেনু

কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ উপায়

কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে মুক্তি চান? জেনে নিন কীভাবে প্রাকৃতিক উপায়েই খুব সহজে নিরাময় করতে পারেন কোষ্ঠকাঠিন্য৷

মানসিক উত্তেজনা থেকে দূরে থাকুন
শুধু খাওয়া-দাওয়া নয়, মানুষের জীবনযাত্রা, মানসিক চাপ বা স্ট্রেসও পেট খারাপ, পেটকষা বা হজমের ওপর প্রভাব ফেলতে পারে৷ তাই প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শ নিন৷

প্রচুর পানি পান
কোষ্ঠকাঠিন্যের থেকে মুক্তি পেতে সারা দিনে প্রচুর পরিমাণ পানি পান করতে হবে৷ কম পানি খেলে অনেক সময় শরীর শুষ্ক হয়ে যায়৷ ফলে এ সমস্যা প্রকট হয়ে ওঠে৷

লেবু
লেবুর রস কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা রোধ করতে খুব সহায়তা করে থাকে৷ হালকা কুসুম গরম পানিতে লেবু চিপে নিন এবং প্রতিদিন সকালে একদম খালি পেটে এই লেবু পানি খেয়ে নিন৷ এরপর সন্ধ্যার দিকে আবারো আরেক গ্লাস খান৷ এই পানীয়টি প্রতিদিন নিয়ম করে খান, দেখবেন খুব দ্রুতই কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা সেরে যাবে৷

ডুমুর
কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে ডুমুরেরও জুড়ি নেই৷ তাই হাতের কাছে ডুমুর থাকলে নিয়ম করে খেতে পারেন৷

আলুবোখারা
আঁশযুক্ত যে কোনো খাবার কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে আপনাকে উপশম দেবে৷ এই যেমন আলুবোখরা৷ এতে রয়েছে প্রচুর আঁশ৷

এলাচ
একটি এলাচ এক কাপ গরম দুধে ভিজিয়ে সারা রাত রেখে দিন৷ সকালবেলা এলাচটি থেঁতো করে দুধসহ পান করুন৷ কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাটি যদি ভয়াবহ রকমের বেশি হয়, তাহলে সকাল ও রাত – দু’বেলাই এভাবে দুধসহ এলাচ খেতে পারেন৷আদা

চা
আদা চা খাবার তাড়াতাড়ি পাচন করতে সাহায্য করে৷ তাই কোষ্ঠ পরিষ্কার হয় সহজেই৷

যে কোনো শাক
হজমশক্তি বাড়াতে পালং শাকের উপকারিতা দারুণ৷ এছাড়া আঁশযুক্ত যে কোনো শাক-সবজি এ সমস্যা থেকে আপনাকে মুক্তি দিতে পারে৷

মিন্ট চা
মেন্থল বা পুদিনা পাতা দেওয়া চা শরীরের পাচনতন্ত্রের পেশীগুলোকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে৷ তাই রোজ সকালে এক কাপ করে মিন্ট চা আপনার কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করতে পারে৷

পাকা পেঁপে বা বেল
প্রতিদিন যদি পাকা পেঁপে বা পাকা বেল খাওয়া যায়, তাহলেও কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা সহজেই দূর করা যায়৷ অবশ্য এমনি না খেয়ে বেল ও দুধ দিয়ে শরবত বানিয়ে খেলেও এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন৷

মধু
কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা দূর করতে প্রিতিদিন মধু খেতে ভুলবেন না৷ এই সমস্যায় মধু খুব উপকারী৷

ওলিভ ওয়েল
বাদাম, ওলিভ ওয়েল, অ্যাভোকাডোর মতো স্বাস্থ্যকর ফলও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে পারে৷

আপেল
প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার এক ঘণ্টা আগে খোসাসহ একটা গোটা আপেল খেয়ে নিন৷