মেইন ম্যেনু

কৌশলগত কারণে রিজার্ভ চুরির প্রতিবেদন প্রকাশ হচ্ছে না

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন বৃহস্পতিবার প্রকাশ হবে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এর আগে গত সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ প্রতিবেদন প্রকাশের ঘোষণা দিয়েছিলেন মুহিত নিজেই।

বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী প্রতিবেদন প্রকাশের অপারগতার কথা জানান। এসময় মুহিত বলেন, বৃহস্পতিবার রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা সম্ভব হবে না। কৌশলগত কারণে আমরা প্রতিবেদন প্রকাশের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছি। এটি প্রকাশ করতে আরো সময় লাগবে। কতদিন সময় লাগবে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মুহিত কোনো তথ্য দিতে পারেননি।

অর্থমন্ত্রী আরো জানান, ইতোমধ্যে ফিলিপাইন থেকে ১২০ কোটি টাকা ফেরত পেয়েছে বাংলাদেশ। আগামী ৪/৫ মাসের মধ্যে পুরো অর্থ ফেরত পাওয়া যাবে বলে আশা করি।

বিষয়টি নিয়ে গত সোমবার মুহিত বলেছিলেন, প্রতিবেদন আমার হাতে আছে। নির্ধারিত দিনে তা জনসম্মুখে প্রকাশ করা হবে। ২৪ সেপ্টেম্বর আমি দেশের বাইরে যাব। তার আগে ২২ সেপ্টেম্বর এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে।

এরআগেও কয়েকবার করে এই প্রতিবেদন প্রকাশ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী। তবে নিজের দেওয়া প্রতিশ্রুতি রাখতে ব্যর্থ হন তিনি। সর্বশেষ গত মাসে তিনি বলেছিলেন ২৪শে সেপ্টেম্বরের আগেই প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হবে।

গত ফেব্রুয়ারিতে সুইফট মেসেজিং সিস্টেমের মাধ্যমে ভুয়া বার্তা পাঠিয়ে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কের বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের একাউন্ট থেকে আট কোটি ১০ লাখ ডলার ফিলিপাইনে সরিয়ে নেওয়া হয়। বিষয়টি চেপে রাখায় সমালোচনার মুখে গভর্নরের পদ ছাড়তে বাধ্য হন ড. আতিউর রহমান। বড় ধরনের রদবদল হয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের শীর্ষ পর্যায়ে।

এরপর রিজার্ভ চুরির ঘটনা তদন্তে সাবেক গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনকে প্রধান করে গত ১৫ই মার্চ তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে সরকার। ওই কমিটি ৩০শে মে সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রীর কাছে তদন্ত প্রতিবেদন হস্তান্তর করে।