মেইন ম্যেনু

ক্যান্সারের শেষ স্তর থেকে রক্ষা পেল এক বছরের শিশু!

ক্যান্সার একটি ভয়ংকর দুরারোগ্য ব্যাধি। এই রোগ থেকে সহজে মুক্তি পাওয়া যায় না। যাদের প্রাথমিক পর্যায়ে ক্যান্সার থাকে তাদের ক্যান্সার থেকে মুক্তি পাবার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু যাদের ক্যান্সারের স্তর বাড়তে থাকে বা প্রাথমিক পর্যায় পাড় হয়ে আরও উপরের স্তরে চলে যায় তাদের বাঁচান সম্ভব হয় না। তবে এই প্রথম দুরারোগ্য এই ব্যাধি প্রাথমিক স্তর পাড় করার পরও এক বছরের শিশু এই মরণব্যাধি থেকে মুক্তি পেয়েছে।

সেন্ট্রাল লন্ডনে গ্রেট ওরমন্ড স্ট্রিট হাসপাতালে লায়লা রিচার্ডস নামের এই শিশুটির চিকিত্সা করানো হয়েছে। মাত্র ১৪ সপ্তাহ বয়সে এই শিশুটির অ্যাকিউট লিম্ফোব্লাস্টিক লিউকেমিয়া ক্যান্সার ধরা পরে।

লায়লাকে ব্যাপক কেমোথেরাপি চিকিত্সা দেয়া হয়। কিন্তু তার ক্যান্সার ক্রমাগত বৃদ্ধি পেটে থাকে, পরবর্তীতে ডাক্তার উপশমকারী অপশন বিবেচনা করার জন্য তার বাবা-মাকে পরামর্শ দেন।

লায়লায় বাবা পেশায় একজন গাড়িচালক। ৩০ বছর বয়সী লায়লার বাবা অ্যাশলে রিচার্ড বলেন, এটা শুনতে অনেক ভয়ানক ছিল যে, এই চিকিৎসা কোন মানুষের উপর এর আগে প্রয়োগ করা হয়নি কিন্তু এখানে কোন সন্দেহ ছিল না যে ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও আমরা ট্রিটমেন্ট করাতে চেয়েছিলাম। লায়লা অনেক অসুস্থ ছিল এবং অনেক ব্যাথা সহ্য করছিল, তাই আমরা দ্রুত কোন কিছু করতে চেয়েছিলাম।

এই নতুন চিকিত্সায় ‘আণবিক কাঁচি’ ব্যবহার করা হয়। এটি দিয়ে জিন সম্পাদনা করা হয় এবং ড্রাগ প্রতিরোধী লিউকেমিয়ার বধ প্রোগ্রাম ডিজাইনার ইমিউন কোষ তৈরি করা হয়।

লায়লাকে UCART19 কোষ হিসেবে পরিচিত জেনেটিকালি-ইঞ্জিনিয়ার্ড কোষের একটি ছোট ১মিলি সাইজের আধান দেওয়া হয়। সাধারণত এর ফলে একটি ফুসকুড়ি বা জ্বর আকারে এক থেকে দুই সপ্তাহের মধ্যে ডাক্তারেরা এর অনাক্রম্যতা দেখতে প্রত্যাশিত।

সে দুই সপ্তাহের সময়ের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠে। যাইহোক, ডাক্তারেরা যখন তার বাড়িতে পাঠানোর জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তখনি তার শরীরে কিছু ফুসকুড়ি দেখা যায়। কিন্তু তাকে সুস্থ দেখাচ্ছিল।

লায়লার ডাক্তার রিচার্ডস বলেন, সে এই মুহূর্তে ভাল আছে, যদিও আমরা এখনও ভবিষ্যতে কী হবে তা জানি না। আপাতত প্রতি মাসে তার অস্থি মজ্জা চেক করা হবে এবং তার বাকি জীবনে কিছু ঔষধ সবসময় চালিয়ে যেতে হবে।

লায়লার প্রধান ডাক্তার অস্থি মজ্জা ট্রান্সপ্লান্টের পরিচালক পল ভেস বলেন, এই প্রথম এই ধরণের চিকিৎসা করা হয়েছে। তাই আমরা বুঝতে পারছিলাম না, কত সময়ের মধ্যে এটি কাজ করবে। আমরা অনির্দিষ্ট হয়ে কাজ করেছি।

তার লিউকেমিয়া খুব আক্রমণাত্মক ছিল কিন্তু এর প্রতিক্রিয়া অনেকটা অলৌকিক ঘটনা। ডাক্তারেরা বলছেন, লায়লা সত্যি অনেক সাহসী একজন মেয়ে। –সূত্র: মেট্রো।